Printed on Tue May 11 2021 6:54:36 AM

এই সপ্তাহের বিশ্ব

সাবরিনা লিজা
বিশ্বভিডিও সংবাদ
এই সপ্তাহের বিশ্ব
এই সপ্তাহের বিশ্ব
সপ্তাহ জুড়ে বিশ্বে ঘটে যায় নানান ঘটনা। এসব নানা আলোচিত ঘটনা তুলে ধরবো ‘এই সপ্তাহের বিশ্ব’ শিরোনামের এই লেখায়।

রাজধানীর গ্রীনরোডের ঝুপড়ি ঘরে বসে মার্ক জাকারবার্গের ফেসবুককে টেক্কা দেয়ার মত চাঞ্চল্যকর ঘটনা। শুনে অবাক হলেও ঘটনা সত্য। এ নিয়ে আদালতে পর্যন্ত যেতে হয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুককে।

সামাজিকতা রক্ষা থেকে শুরু করে জীবন জীবিকা চালাতে ব্যবসা-বাণিজ্য সব কিছুতেই জড়িয়ে আছে ফেসবুক। অথচ বাংলাদেশে ব্যবসা বাড়াতে এই প্রতিষ্ঠানটিকেই হোঁচট খেতে হচ্ছে। কেননা এজন্য দরকার দেশের কোডসহ বিটিসিএল-এর নিবন্ধন। অথচ ফেসবুক ডটকম ডট বিডি নামে ২০০৮ সালে বিটিসিএল এর কাছ থেকে ডোমেইন কিনে রেখেছে এ-ওয়ান সফটওয়ার নামের দেশের একটি প্রতিষ্ঠান।

এরই মধ্যে গ্রিনরোডের এ ওয়ান কোম্পানিটি ফেসবুক ডটকম ডট বিডি ডমেইনের দাম হেঁকেছে ৬ মিলিয়ন ডলার বা ৫১ কোটি টাকা। তাতেই গোল বেধেছে। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ আইনী নোটিশ পাঠিয়েও এ ওয়ানকে কাবু করতে পারেনি। সে কারণে ফেসবুক হেঁটেছে মামলার পথে। এদিকে এ ওয়ান কোম্পানির স্বত্বাধিকারী বলছে, তারাও ছেড়ে কথা বলবে না ফেসবুককে।

ফেসবুকের নিযুক্ত আইনজীবী বলেন, ‘ফেসবুক ডট কম ডট বিডির মাধ্যমে ফেসবুকের রূপ ধারণ করে অনেক প্রকার বেআইনি কর্মকাণ্ডে জড়িত হওয়ার সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যায় না’। রাজধানীর গ্রিন রোডের সরু গলির ভেতর পুরাতন একটি ভবনের চতুর্থ তলায় এ ওয়ানের অফিস। দুই রুমের অফিসটিতে কয়েকটি কম্পিউটার আর কিছু তারের স্তুপ ছাড়া কিছুই নেই। এ ওয়ান মূলত এলাকায় ইন্টারনেট সংযোগের ব্যবসা করে। এই প্রতিষ্ঠানের স্বত্ত্বাধিকারী জানান, তারা আইন মেনেই ডোমেইন কিনেছেন, তাই লড়তে চান আদালতেও।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা– ডব্লিউিএইচও’র করোনা ভ্যাকসিন বন্টন পরিকল্পনা কোভ্যাক্স-এর অংশ হিসেবে ভ্যাকসিন ও সিরিঞ্জ বিতরণ নিয়ে কাজ করছে ইউনিসেফ। সম্প্রতি তারা দরিদ্র দেশগুলোয় ২০০ কোটি করোনা ভ্যাকসিন বিতরণ করবে বলে ঘোষণা দিয়েছে।

বিশ্ব নেতাদের প্রতিশ্রুতি মোতাবেক দরিদ্র দেশগুলোর করোনা ভ্যাকসিন প্রাপ্তি নিশ্চিত করা হবে। এজন্য প্রায় ২০০ কোটি ডোজ বিরতণ করবে জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ। ২৩ নভেম্বর সোমবার বার্তা সংস্থা রয়টার্সের বরাত দিয়ে সৌদি আরব-ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-আরাবিয়া এ তথ্য জানিয়েছে।

ইউনিসেফ জানিয়েছে, ভ্যাকসিন বহনের জন্যে তারা এয়ারলাইন্স ও মালামাল বহনকারী সংস্থাগুলোর সঙ্গে কাজ করছে। সংবাদ প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, দরিদ্র দেশগুলোর তালিকায় রয়েছে বুরুন্ডি, আফগানিস্তান ও ইয়েমেনসহ অন্যান্য দেশ।

‘কোভ্যাক্স’ কর্মসূচির লক্ষ্য হলো কোনো দেশ যেন করোনা ভ্যাকসিন মজুদ করে না রাখে এবং প্রতিটি দেশের সবচেয়ে ঝুঁকিতে থাকা মানুষগুলোকে যেন প্রথম ভ্যাকসিন সেবা দেওয়া যায়। এটি ডব্লিউিএইচও, জিএভিআই ও কোয়ালিশন ফর এপিডেমিক প্রিপেয়ার্ডনেস ইনোভেশনসের যৌথ উদ্যোগে পরিচালিত হচ্ছে। এর আগে গেল ২১ নভেম্বর শনিবার রিয়াদে জি২০ সম্মেলনে বিশ্ব নেতারা দরিদ্র দেশগুলোতে করোনা ভ্যাকসিনের ন্যায়সঙ্গত বিরতণ নিশ্চিত করার আহ্বান জানিয়েছিলেন।

তীব্র গরমে হাঁপিয়ে উঠেছে অস্ট্রেলিয়ার বাসিন্দারা। অসহনীয় তাপমাত্রার কারণে দাবানল ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কায় সতর্কতা সংকেত দেখানো হচ্ছে দেশের বিভিন্ন স্থানে।

অস্ট্রলিয়ার আবহাওয়া দফতরের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, আগামী ৫ - ৬ দিনে কুইন্সল্যান্ডের দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলে তাপমাত্রা অস্বাভাবিক ভাবে বাড়তে পারে। বিভিন্ন জায়গায় অসহনীয় তাপমাত্রার কারণে দাবানল ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কায় দেশের উত্তর পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোতে সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। সেই সঙ্গে সতর্ক রয়েছে দমকল বাহিনী। ইতোমধ্যে ৪৫টি স্থানে দাবানলের খবর পাওয়া গেছে। হুমকির মুখে পশ্চিম সিডনির অনেক ঘর-বাড়ি।

গত ২৮ নভেম্বর রাতে সর্বোচ্চ ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে সিডনিতে, যা চলতি বছরের নভেম্বরের মধ্যে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। অস্ট্রেলিয়ায় রাতে গড়ে তাপমাত্রা থাকে ২৫ দমশিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সাউথ অস্ট্রেলিয়া এবং ভিক্টোরিয়ায় সামনের সপ্তাহগুলোতে তাপমাত্রা বাড়ার পূর্বাভাস রয়েছে। মহামারি করোনার কারণে বিধি-নিষেধ থাকায় সাউথ ওয়েলসের বাসিন্দাদের সমুদ্র সৈকত থেকে দূরত্ব বজায় রাখতে বলেছে রাজ্যের স্বাস্থ্য অধিদফতর। এছাড়া পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পাঁচটি অগ্নিনির্বাপণ বিমান প্রস্তুতির কথা জানান দমকল বাহিনীর উপকমিশনার পিটার।

২০১৯-২০২০ এর দাবানলে অস্ট্রেলিয়াজুড়ে ২ কোটি ৪০ লাখ হেক্টর বনভূমি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। যা এ যাবৎকালের সবচেয়ে ভয়াবহ দাবানল বলে ধারণা করা হয়। দাবানলে পুড়ে মারা যান কমপক্ষে ৩৩ জন। কোটির বেশি প্রাণীর বাস্তুচ্যুত অথবা মৃত্যু হয়।

নাইজেরিয়ায় ৪৩ জন কৃষককে গলা কেটে হত্যা করছে দুর্বৃত্তরা। ধানক্ষেতে কাজ করার সময় তাদের নির্মমভাবে গলাকাটা হয়।

২৮ নভেম্বর শনিবার দেশের উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় কশোবি গ্রামে এই হত্যাকাণ্ড চালানো হয়। গ্রামবাসী ৪৩টি মরদেহ উদ্ধার করেছে। সবাইকে একই কায়দায় হত্যা করা হয়। তবে কারা হত্যা করেছে তা এখনো জানা না গেলেও স্থানীয় সশস্ত্র জঙ্গিগোষ্ঠী ‘বোকো হারাম’ করতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। হামলাকারীদের গ্রেফতারে অভিযানে নেমেছে প্রশাসন।

একজন স্থানীয় বাসিন্দা জানিয়েছেন, নিহত কৃষকরা কাজের সন্ধানে প্রায় এক হাজার কিলোমিটার দূরবর্তী সোকোতো অঞ্চল থেকে কশোবি আসেন। ৬০ জন কৃষকের সঙ্গে ধানক্ষেতে কাজ করার চুক্তি ছিল। ৪৩ জনকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছেন আরও ৬ জন। আরও কয়েকজনকে না পাওয়ায় তাদের অপহরণ করা হয়েছে মনে করছেন গ্রামবাসী।

দীর্ঘদিন ধরে জঙ্গি গোষ্ঠীটির হামলার শিকার হচ্ছে সাধারণ মানুষ। উত্তর-পূর্ব নাইজেরিয়ায় বোকো হারাম এবং ইসলামিক স্টেট- আইএসডব্লিউএপি। সহিংসতায় হাজার হাজার মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। ২০০৯ থেকে এ পর্যন্ত বাস্তুচ্যুত হয়েছেন অন্তত ২০ লাখ নাইজেরিয়ান। কয়েক দশক ধরেই লুটপাট, হত্যা, গুমসহ নানা অপকর্ম চালিয়ে আসছে নাইজেরিয়ায় সশস্ত্র বোকো হারামের সশস্ত্র সদস্যরা।

মার্কিন নৌবাহিনীর ক্ষেপণাস্ত্র বিধ্বংসকারী একটি জাহাজকে নিজেদের জলসীমা থেকে ধাওয়া করে তাড়িয়ে দিয়েছে রুশ যুদ্ধজাহাজ। ২৪ নভেম্বর এক বিবৃতিতে এমনটিই দাবি করেছে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, জাপান সাগরে রুশ যুদ্ধজাহাজ ‘অ্যাডমিরাল ভাইনোগ্রাডভ’ প্রথম দফায় মার্কিন যুদ্ধজাহাজ ‘ইউএসএস জন এস ম্যাককেইন’কে মৌখিকভাবে সতর্ক করে। এতে কোনো সাড়া দেয়নি মার্কিন জাহাজটি। কিন্তু জাপান সাগরের রুশ জলসীমা না ছাড়লে ওই মার্কিন রণতরীকে আঘাত করতে বাধ্য হবে বলে হুঁশিয়ারি দেয় তারা।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা সৃষ্টি হয় ওই জলসীমানায়। রাশিয়া তাদের বিবৃতিতে জানিয়েছে, হুঁশিয়ারির পর মার্কিন যুদ্ধজাহাজ ‘জন ম্যাককেইন’ দ্রুত আন্তর্জাতিক জলসীমায় চলে যায়। দু’দেশের জাহাজ মুখোমুখি অবস্থানের ফলে যে কোনো অপ্রীতিকর পরিস্থিতি আশঙ্কা করা হচ্ছিল।

জানা গেছে, রাশিয়ার প্রশান্ত মহাসাগরের নৌ-বহর থেকে যাওয়া যুদ্ধজাহাজটি মার্কিন যুদ্ধ জাহাজ অনুসরণ করছিল। এক পর্যায়ে যুক্তরাষ্ট্রের জাহাজটি নিজেদের জলসীমা অতিক্রম করে প্রায় দুই কিলোমিটার ভেতরে চলে আসে বলে দাবি মস্কোর। মস্কো জানায়, রুশ জলসীমা থেকে বিতাড়িতের পর আর দেখা যায়নি মার্কিন জাহাজটিকে। যদিও এমন পরিস্থিতিতে ওই এলাকা থমথমে হয়ে রয়েছে।

মধ্যপ্রাচ্যে আবারও ভয়ঙ্কর বোমারু বিমান মোতায়েন করল যুক্তরাষ্ট্র। বিমানটি হলো বি-৫২ এইচ স্ট্রাটোফোরট্রেস বোমারু বিমান।

মধ্যপ্রাচ্যে ইরান ও তার মিত্রদের সঙ্গে ট্রাম্প তার মেয়াদের শেষ সময়ে সংঘাতে জড়াতে পারেন এমন আশঙ্কা করছিলেন মধ্যপ্রাচ্য বিশ্লেষকরা। আর এই গুঞ্জনের মাঝেই বি-৫২ এইচ স্ট্রাটোফোরট্রেস বোমারু বিমান মোতায়েনের খবর এলো। সম্প্রতি আমেরিকার নর্থ ড্যাকোটার একটি বিমানঘাঁটি থেকে দুইটি বোমারু বিমান মধ্যপ্রাচ্যে পাঠানোর পর এসব বিমান মধ্যপ্রাচ্যে টহল দিতে থাকে।

তবে মার্কিন সেন্ট্রাল কমান্ড এক বিবৃতিতে দাবি করেছে, স্বল্প সময়ে এই মিশন পরিচালনা করা হয়েছে এবং এর উদ্দেশ্য হচ্ছে আগ্রাসন প্রতিরোধ ও মার্কিন মিত্রদেরকে আশ্বস্ত করা। বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, এই মিশনের মধ্যদিয়ে এ কথা প্রমাণ করা হয় যে, স্বল্পসময়ের নোটিশে মার্কিন বাহিনী বিশ্বের যেকোনো জায়গায় বিমান শক্তি মোতায়েন করার ক্ষমতা রাখে।

এছাড়াও এই মিশনের মাধ্যমে বিমানের ক্রুরা মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন রুট ও কমান্ড অ্যান্ড কন্ট্রোল সিস্টেমের সঙ্গে পরিচিত হয়ে উঠবেন। যাতে মার্কিন বাহিনী যে কোনো হুমকি নস্যাৎ করার সক্ষমতা অর্জন করতে পারে।

বিক্ষোভে উত্তাল ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিস। কর্মক্ষেত্রে পুলিশের ছবি প্রকাশে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে আইন প্রণয়নের পরই বিক্ষোভ করতে শুরু করে ফ্রান্সের জনগণ। শুধু প্যারিস নয় ফ্রান্সজুড়েই চলে বিক্ষোভ।

গত ২৮ নভেম্বর করোনা উপক্ষো করে প্যারিসের রাস্তায় বিক্ষোভে অংশ নেন কয়েক লাখ মানুষ। আগুন জ্বালিয়ে এ সময় সরকারবিরোধী স্লোগানে মুখর হয় চারপাশ। এতে অংশ নেন, সাংবাদিক, শিক্ষার্থী, বামপন্থি, অভিবাসী অধিকার সংগঠনসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ। বিক্ষোভকারীরা বলছেন এ আইন পাস হলে পুলিশের নির্যাতনের বিরুদ্ধে কিছু বলা যাবে না, পুলিশি সহিংসতার ছবি প্রকাশ করা যাবে না। প্রস্তাবিত এ আইনকে গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ বলে মনে করছেন তারা।

সাধারণ মানুষ বলছেন, ‘পুলিশ সহিংসতা না করলে তাদের সহিংসতার ছবি তোলারও প্রয়োজন পড়বে না। তার মানে পুলিশ সহিংস সেটা প্রমাণ হচ্ছে। তারা বলছে তাদের ক্ষুব্ধতার কারণ এদেশের সরকার জনগণের কথা শোনার প্রয়োজন মনে করে না, উল্টো এ রাষ্ট্র দমন করতে চায়। তাদের বক্তব্য পুলিশের পক্ষে আরও আইন আছে, নতুন করে আর দরকার নেই। প্রস্তাবিত আইনটি পাস হলে, জনগণের অধিকার ক্ষুণ্ণ হবে।

দিন গড়িয়ে রাত হলেও চলতে থাকে বিক্ষোভ। দাঙ্গা পুলিশ বাধা দিলে সংঘর্ষ বেঁধে যায় তাদের সঙ্গে। পুলিশকে লক্ষ্য করে পানির বোতল আর পাথর ছুড়লে বিক্ষোভকারীদের দমনে কাঁদানে গ্যাস ও জলকামান নিক্ষেপ করে পুলিশ।

ভয়েসটিভি/এএস
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/26580
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ