Printed on Wed Jul 28 2021 4:55:48 PM

করোনা মাহামারীতেও ঘুরে দাঁড়াল দেশের রফতানি আয়

নিজস্ব প্রতিবেদক
জাতীয়
রফতানি আয়
রফতানি আয়
প্রায় দুই বছর হতে চললো বিশ্বজুড়ে চলছে করোনা মহামারী। যেখানে বিশ্বের অর্থনীতি অনেকাংশেই ক্ষতিগ্রস্ত সেখানে বাংলাদেশ পিছিয়ে নেই। মহামারী চলাকালীন সময় ২০২০-২০২১ অর্থবছরের রফতানি আয়ে প্রবৃদ্ধিসহ কয়েকটি ইতিবাচক সূচকের দেখা মিলেছে; যদিও সামগ্রিক রফতানি লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে এখনও সাড়ে ৫ শতাংশ পিছিয়ে।

৫ জুলাই সোমবার রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো- ইপিবি সর্বশেষ অর্থবছরের রফতানি আয়ের পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে।

এতে দেখা যায় গত ৩০ জুন শেষ হওয়া অর্থবছরে মোট তিন হাজার ৮৭৫ কোটি ৮৩ লাখ ডলারের (৩৮ দশমিক ৭৫ বিলিয়ন) পণ্য রফতানি করেছে বাংলাদেশ।

এর আগের ২০১৯-২০ অর্থবছরের চেয়ে যা ১৫ দশমিক ১০ শতাংশ বেশি। ওই বছর ৩ হাজার ৩৬৭ কোটি ডলারের (৩৩ দশমিক ৬৭ বিলিয়ন) পণ্য রফতানি হয়েছিল।

২০১৯-২০২০ অর্থবছরের নয় মাস পেরিয়ে যাওয়ার পর এপ্রিলে মহামারীর প্রথম ধাক্কা এসেছিল। অন্যদিকে সদ্যসমাপ্ত ২০২০-২০২১ অর্থবছর জুড়ে সংক্রমণের মধ্যে সময় পার করতে হয়েছে।

সর্বশেষ এপ্রিল মাসেও কোভিড-১৯ এর দ্বিতীয় ঢেউ সামাল দিতে আবার লকডাউন শুরু হয়েছে। এমন পরিস্থিতির মধ্যে রফতানি আয়ের এই প্রবৃদ্ধিকে মহামারীর সঙ্গে খাপ খাওয়ার প্রচেষ্টায় সাফল্য হিসেবে দেখছেন রফতানিকারকরা।

রফতানি উন্নয়নের তথ্যে দেখা যায়, সদ্য সমাপ্ত অর্থবছরের শেষ মাস জুনে ৩৬৭ কোটি ডলারের পণ্য রফতানি করেছে বাংলাদেশ; যা গত বছরের জুন মাসের চেয়ে ৩১ দশমিক ৭৭ শতাংশ বেশি।

সবর্শেষ পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, মোট রফতানি আয়ের ৮১ শতাংশই এসেছে তৈরি পোশাক খাত থেকে। এছাড়া পাট ও পাটপণ্য, চামড়া ও চামড়াপণ্য, হোম টেক্সটাইল, প্লাস্টিক পণ্য, কৃষিপণ্য রপ্তানিতে আয় ইতিবাচক ধারায় ফিরেছে।

আরও পড়ুন : মাছ আমদানি-রফতানি বেড়েছে বেনাপোল দিয়ে

সদ্য সমাপ্ত অর্থবছরে চার হাজার ১০০ কোটি ডলার রফতানি লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত না হলেও সার্বিক চিত্র দেখে অনেকটা আশা পাচ্ছেন  শিল্প মালিক ও রপ্তানিকারকরা।

এ বিষয়ে বিজিএমইএর সভাপতি ফারুক হাসান  , “২০১৯-২০২০ অর্থবছরের এপ্রিলে প্রথম যখন মহামারী হানা দেয় তখন আমরা কারখানা লম্বা সময় বন্ধ রেখেছিলাম। তবে এবার আরও খারাপ পরিস্থিতির মধ্যেও মালিক-শ্রমিকরা সাহস করে উৎপাদন প্রক্রিয়া চালু রেখেছেন।

“সরকারও এ বিষয়ে সহযোগিতা অব্যাহত রেখেছে। বলা চলে- এমন পরিস্থিতিতে রফতানি আয়ের প্রবৃদ্ধি মহামারীতে ঘুরে দাঁড়ানোর সূচক।“

পোশাক খাত গত কয়েক মাসে অনেকটা ‘কাভার’ করেছে এবং ভালো করেছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, “আগামীতে আরও ভালো করতে পারব বলেই মনে হচ্ছে।

“পোশাক খাতে গত বছরের চেয়ে সাড়ে ১২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি রয়েছে। তবে মহামারী শুরুর আগের পরিস্থিতির সঙ্গে তুলনা করলে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের চেয়ে এখনও ৭ দশমিক ৮৪ শতাংশ পিছিয়ে আছি।“

নিট পোশাক ইতোমধ্যে প্রি-কভিড অবস্থায় ফিরেছে জানিয়ে বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, “২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের তুলনায় দশমিক ৪৪ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে। ওভেনে এখনও ১৬ শতাংশের মত পিছিয়ে আছি। আমরা অর্ডার পাচ্ছি, ইউরোপ-আমেরিকাতে সব মার্কেট খুলে গেছে।

ভয়েস টিভি/ডি
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/47938
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ