Printed on Sun Sep 19 2021 11:55:49 PM

কাবুল বিমানবন্দরে আরও ৭ আফগানের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক
বিশ্ব
কাবুল বিমানবন্দরে আরও ৭ আফগানের মৃত্যু
কাবুল বিমানবন্দরে আরও ৭ আফগানের মৃত্যু
আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের বাইরে হুড়োহুড়ির ঘটনায় সাত আফগান নাগরিক নিহত হয়েছে। ব্রিটিশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের (এমওডি) বরাতে স্কাইনিউজ এমন খবর দিয়েছে।

গত ১৫ আগস্ট রোববার কাবুলের দখল নেওয়ার পর পুরো আফগানিস্তান তালেবানের দখলে চলে যায়। এরপর থেকেই আফগানিস্তান ছাড়ার হিড়িক শুরু হয়। বহু আফগান নাগরিক এর মধ্যেই দেশ ছেড়েছে। এছাড়া আরও অনেকেই এখনও দেশ ছাড়ার চেষ্টা করে যাচ্ছেন।

২২ আগস্ট রোববার এক বিবৃতিতে এমওডি জানিয়েছে, বিমানবন্দরের পরিস্থিতি খুবই চ্যালেঞ্জিং। পরিস্থিতি সামলাতে আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি। নিরাপদে লোকজনকে সরিয়ে আনার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। কাবুলে ভিড়ে মারা যাওয়া আফগান বেসামরিক নাগরিকদের পরিবারের প্রতি আমরা আন্তরিক সহানুভূতি প্রকাশ করছি।

ব্রিটিশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, লোকজন মরিয়া হয়ে আফগানিস্তান ছাড়ার চেষ্টা করছে। কাবুল বিমানবন্দরের বাইরে লোকজনের হুড়োহুড়িতে সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। এখন পর্যন্ত কাবুল বিমানবন্দরে মোট ১৭ জন প্রাণ হারিয়েছে। এর মধ্যে বেশ কয়েকজন গুলিতে নিহত হয়েছেন এবং বাকিরা হুড়োহুড়িতে প্রাণ হারিয়েছেন।

এদিকে, বিশৃঙ্খল কাবুল বিমানবন্দরে নতুন নির্দেশনা জারি করেছে আফগানিস্তানের তালেবান যোদ্ধারা। বিমানবন্দরের প্রধান ফটকের বাইরে লোকজন যাতে সুশৃঙ্খলভাবে সারিবদ্ধ হতে পারে, তা নিশ্চিত করতে এমন নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। বিমানবন্দরের চৌহদ্দির বাইরে লোকজনকে জড়ো হওয়ার অনুমোদন দিচ্ছে না তালেবান।

বর্তমানে হামিদ কারজাই বিমানবন্দর সাময়িক সময়ের জন্য নিয়ন্ত্রণ করছে প্রায় সাড়ে চার হাজার মার্কিন সেনা। অপরদিকে আরও ৯শ ব্রিটিশ সেনাও সেখানে দায়িত্ব পালন করছেন। ওই বিমানবন্দর থেকে বিভিন্ন ফ্লাইট যেন নিরাপদেই ছেড়ে যেতে পারে সেজন্য কাজ করছেন তারা।

শনিবার রাতে কাবুলের চারটি ফ্লাইট পরিচালনা করেছে অস্ট্রেলিয়া। এতে অস্ট্রেলীয়, আফগান ভিসাধারী, নিউজিল্যান্ডের অধিবাসী, মার্কিন ও ব্রিটিশ নাগরিকসহ ৪০০ জনকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন এমন খবর দিয়েছেন।

নিরাপত্তা ঝুঁকির কথা বলে এদিন কাবুল বিমানবন্দরে যেতে নাগরিকদের নিষেধ করেছে যুক্তরাষ্ট্র ও জার্মানি। যদিও আফগান ছাড়তে হাজার হাজার মানুষকে বিমানবন্দরটিতে জড়ো হতে দেখা গেছে।

গেল রোববার থেকে এখন পর্যন্ত একক রানওয়ের বিমানবন্দরটিতে ১৯ জন নিহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে কয়েকজন গুলিতে, বাকিরা পদদলিত হয়ে নিহত হয়েছেন। সপ্তাহখানেক ধরে তীব্র গরম ও ধুলাবালির মধ্যে সেখানে পলায়নরত মানুষের ভিড় বেড়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র ও অন্যান্য যেসব দেশ বহু আফগান নাগরিকসহ, কূটনৈতিক ও বেসামরিক লোকজনকে সরিয়ে নেওয়ার যে চেষ্টা করছে, অতিরিক্ত ভিড় ও পাড়াপাড়িতে তাদের অভিযান ব্যাহত হচ্ছে।

বাবা-মা ও শিশুরা কংক্রিটের দেয়াল ঠেলে ফ্লাইটে ওঠার চেষ্টা করছেন। শনিবার কাবুলে একটি চার্টার ফ্লাইট স্থগিত করে দিয়েছে সুইজারল্যান্ড। মার্কিন সামরিক বাহিনীর মেজর জেনারেল উইলিয়াম টেইলর বলেন, এখনো পাঁচ হাজার ৮০০ সেনা বিমানবন্দরে রয়েছে। স্থাপনাটি এখনো নিরাপদ বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তবে বিমানবন্দরের ফটক অস্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেওয়ার পর আবার খুলে দেওয়া হয়েছে। এক তালেবান কর্মকর্তা বলেন, নিরাপত্তা ঝুঁকির বিষয়টি উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। তবে আমরা পরিস্থিতির উন্নতি চাচ্ছি। যারা দেশ ছাড়তে চাচ্ছেন, তারা যাতে নিরাপদে বেরিয়ে যেতে পারেন, সেই চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

গত সপ্তাহে ১৭ হাজার মানুষকে আফগানিস্তান থেকে সরিয়ে নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। যাদের মধ্যে আড়াই হাজার মার্কিন সেনা রয়েছে। কাবুল থেকে সরিয়ে নেওয়া লোকজনদের তিন হাজার ৮০০ জনকে আশ্রয় দেওয়া হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে।

আমেরিকান নাগরিক ও শরণার্থীদের সরিয়ে আনা নিয়ে রোববার প্রেস ব্রিফিং করবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। আফগানিস্তানের পরবর্তিত পরিস্থিতি নিয়ে গোয়েন্দা, কূটনৈতিক ও নিরাপত্তা হালনাগাদ শোনার পর তিনি কথা বলবেন।

আরও পড়ুন : আফগানের আগে যে দেশ থেকে লেজ গুটিয়ে পালিয়েছিল মার্কিনিরা

ভয়েস টিভি/ এএন
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/51907
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ