Printed on Wed Jul 28 2021 4:28:19 PM

কেন সঠিক সময়ে বর্জ্য অপসারণ জরুরি

নিজস্ব প্রতিবেদক
জাতীয়
কেন সঠিক
কেন সঠিক
ঈদুল আজহার দিন পশু কোরবানির পরপরই প্রধান চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়ায় বর্জ্য অপসারণ। এ বিষয়ে সামান্য অসচেতনতা বা অজ্ঞতার কারণে দেখা দিতে পারে পরিবেশগত নানা সমস্যা।

কোরবানির পশুর বর্জ্য যেখানে-সেখানে ফেলায় তা পচে চারদিকে দুর্গন্ধ ছড়ায় এবং পরিবেশ দূষিত করে। শুধু তাই নয়, নালা বা নর্দমায় ফেলা বর্জ্য থেকে ছড়ায় নানা ধরনের রোগ জীবাণু।

অতিরিক্ত বর্জ্যরের চাপে নর্দমা বন্ধ হয়ে যায়। ফলে অল্প বৃষ্টিতেই নর্দমার পানি আটকে সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা। তখন সিটি কর্পোরেশন বা পৌরসভা এসব বর্জ্য অপসারণ করতেও হিমশিম খেতে হয়।

অনেক সময় দেখা যায়, কোরবানির পশুর দেহের অবাঞ্চিত অংশ যেখানে-সেখানে ফেলে রাখা হয়। নগর কর্তৃপক্ষের দৃষ্টিগোচর না হলে সেসব অংশ পচে দুর্গন্ধ ছড়ায়। নগর কর্তৃপক্ষ অবশ্য প্রতি কোরবানির ঈদের আগে বর্জ্য অপসারণ সম্পর্কে নির্দেশনা দিয়ে, জনসচেতনতামূলক প্রচার-প্রচারণা চালায়। এরপরও নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। তবে যদি কোরবানির বর্জ্যকে সঠিক ব্যবস্থাপনায় আনা যায়, তাহলে পরিবেশ থাকবে দূষণমুক্ত ও জনস্বাস্থ্য থাকবে নিরাপদ।

বর্জ্য অপসারণ করার একটি উপায় হলো- কোরবানির আগেই বাড়ির আশপাশে কোনো মাঠ কিংবা পরিত্যক্ত জায়গায় একটি গর্ত খুঁড়ে রাখা। কোরবানির বর্জ্য সেখানে ফেলে মাটিচাপা দেয়া। তবে শহরাঞ্চলে গর্ত খোঁড়ার সময় খেয়াল রাখতে হবে যেন পানি ও গ্যাসের পাইপ কোনোভাবে ক্ষতিগ্রস্ত না হয়।

গ্রামাঞ্চলে অনেকের পশু এক সঙ্গে কোরবানি করাসহ বর্জ্য মাটির নিচে পুঁতে রাখা হয়। যা পরবর্তীতে জৈব সার হিসেবে শস্যক্ষেত্রে ব্যবহারের উপযোগী হয়ে উঠে।

কোরবানির কার্যক্রম শেষে রক্তমাখা রাস্তাঘাট ধুয়ে পরিষ্কার করতে হবে। জীবাণু যেন ছড়াতে না পারে সেজন্য নোংরা জায়গা পরিষ্কারের করা সময় ব্লিচিং পাউডার অথবা জীবাণুনাশক ব্যবহার করতে হবে। সুষ্ঠু বর্জ্য ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে ব্যাপক জনসচেতনতা তৈরি করা প্রয়োজন।

যেসব এলাকায় গর্ত খোঁড়ার উপযুক্ত জায়গা নেই, সেসব এলাকার বর্জ্য প্রচলিত উপায়ে অপসারণের ব্যবস্থা করা যেতে পারে। এতে সিটি কর্পোরেশন বা পৌরসভার দায়িত্বভার কিছুটা হলেও কমবে।

কোরবানী দেয়ার স্থানটি রাস্তার কাছাকাছি হলে বর্জ্য অপসারণের গাড়ি পৌঁছানো সহজ হবে। যেসব এলাকায় সিটি কর্পোরেশনের গাড়ি পৌঁছানো সম্ভব নয়, সেসব স্থানে বর্জ্য ব্যাগ বা বস্তায় ভরে ময়লা ফেলার নির্দিষ্ট স্থানে রাখা উচিত।

একটু সচেতনতা আর সঠিক পরিকল্পনা নেয়া হলে পশু কোরবানী পরবর্তী বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নগরবাসীকে রাখতে পারে জীবানুমুক্ত। ​

ভয়েসটিভি/এএস
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/49083
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ