Printed on Thu Sep 23 2021 12:22:12 PM

গুঞ্জন সত্য হলো, সতীর্থদের গার্ড অব অনার পেল মাহমুদউল্লাহ

নিজস্ব প্রতিবেদক
খেলার খবর
গার্ড
গার্ড
বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটারেরা মাঠের পাশে সারি বেঁধে মুখোমুখি দাঁড়ালেন। তাদের করতালির মধ্য দিয়ে হেঁটে মাঠে ঢুকলেন মাহমুদউল্লাহ। এরপর তার পিছু পিছু অন্যরা। মাঠে থাকা সবার জন্যই বড় চমক হয়ে এসেছে দৃশ্যটা। মাহমুদউল্লাহ খেলে ফেলেছেন তার শেষ টেস্ট।

গুঞ্জনটা ছড়িয়েছিল কয়েকদিন আগেই। নিশ্চিত করছিলেন না কেউই। তবে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের অবসর গুঞ্জনে পালে হাওয়া দিয়েছে হারারে টেস্টের পঞ্চম দিনের ঘটনা। মাঠে নামার আগে তাকে গার্ড অব অনার দিয়েছেন সতীর্থরা। এরপরই সমীকরণ মেলাচ্ছেন অনেকেই।

অবশ্য টেস্ট থেকে অবসরের ইচ্ছের কথা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিবি) মাহমুদউল্লাহ জানিয়েছেন হারারে টেস্ট চলার সময়ই। গত শুক্রবার জিম্বাবুয়ের স্থানীয় সময় সকালে টিম মিটিংয়ে ম্যানেজমেন্টকে মাহমুদউল্লাহ নিজের এ ইচ্ছের কথা জানান তিনি। অবশ্য এ বিষয়ে নিজে কোনো বক্তব্য গণমাধ্যমে বা সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে দেননি। তবে কথাটি গোপনও থাকেনি।

১৬ মাস টেস্ট দলের বাইরে ছিলেন মাহমুদউল্লাহ। এবারের জিম্বাবুয়ে সফরের আগে হঠাৎ করেই ডাক পড়ে তার টেস্ট দলে। দুই সিনিয়র ক্রিকেটার তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহিমের ইনজুরি শঙ্কায় তাকে শেষদিকে দলে নেয় নির্বাচকরা। এরপর একাদশেও সুযোগ আসে।

সুযোগ পেয়ে এবার কাজে লাগাতে ভুল করেন নি তিনি। ৮ নম্বরে নেমে অসাধারণ এক শতরানে জানিয়ে দেন-পাঁচদিনের ম্যাচে ফুরিয়ে যাননি তিনি। ক্যারিয়ারের পঞ্চাশতম টেস্টে খেলেন ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস। ঠিক এই ইনিংসটি খেলে অভিমানে সরে দাঁড়ানোর পরিকল্পনা করেন রিয়াদ। যদিও তাকে সিদ্ধান্ত পাল্টাতে বলে বিসিবি। কিন্তু অভিমানের বরফ গলছে না!

সবাইকে ভুল প্রমান করে মাহমুদউল্লাহ নিজের সিদ্ধান্তেই অটল থাকলেন। তবে জানা গেছে টিম ম্যানেজমেন্ট সদস্যরা না জানলেও মাহমুদউল্লাহর সতীর্থদের অনেকেই জানতেন মাহমুদউল্লাহ তার সিদ্ধান্তে অটলই থাকছেন। তারাই তাকে গার্ড অব অনার দেয়ার আয়োজন করে। এর সঙ্গে টিম ম্যানেজমেন্ট বা বোর্ডেরও কোনো সম্পর্ক ছিল না।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২০০৯ সালের ৯ জুলাই কিন্সটনে টেস্ট অভিষেক হয় মাহমুদউল্লাহর। এরপর খেলেছেন ৫০ টেস্ট। এবার টেস্ট ফরম্যাটে থামছেন টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক।

মাহমুদউল্লাহর এমন সিদ্ধান্তে ক্ষোভও প্রকাশ করেছিলেন নাজমুল হাসান। জিম্বাবুয়ে আসার আগে অন্য ক্রিকেটারদের মতো মাহমুদউল্লাহও নাকি বোর্ডকে লিখিতভাবে জানিয়েছেন তাঁর ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা। জাতীয় দলের টি–টোয়েন্টি অধিনায়ক নাকি সেখানে লিখেছিলেন, ভবিষ্যতে তিনি তিন সংস্করণের ক্রিকেটই খেলতে চান। সে জন্যই তাকে জিম্বাবুয়ের টেস্ট দলে নেওয়া হয়েছে। তা ছাড়া একটা টেস্টের মাঝখানে অবসরের কথা বলে মাহমুদউল্লাহ ঠিক করেননি বলেও মন্তব্য করেছিলেন বিসিবি সভাপতি।

ভয়েস টিভি/এসএফ
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/48718
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ