Printed on Sat May 15 2021 9:05:37 PM

নির্যাতিত সেই ভিক্ষুকের বিরুদ্ধে এবার চুরির মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক
সারাদেশ
চুরির মামলা
চুরির মামলা
ধান চুরির অভিযোগে অমানবিক ও নির্মম নির্যাতনের শিকার সেই ভিক্ষুক আব্দুল বারেকের বিরুদ্ধে অবশেষে নেত্রকোনার মদন থানায় চুরির একটি মামলা রুজু করা হয়েছে।

২৯ এপ্রিল বৃহস্পতিবার দুপুরে ওই ভিক্ষুককে নির্যাতনকারী মদন উপজেলার গোবিন্দশ্রী ইউনিয়নের বারঘরিয়া গ্রামের বাসিন্দা মাসুদ মিয়ার ভাই খায়রুল মিয়া বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেন।

এদিকে মামলা দায়েরের পর থানা হেফাজতে থাকা ভিক্ষুক আব্দুল বারেককে বৃহস্পতিবার বিকালে নেত্রকোনা আদালতে পাঠানো হয়েছে।

সন্ধ্যায় বিষয়টি নিয়ে মদন থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফেরদৌস আলমের সাথে কথা হলে তিনি এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

ওসি বলেন, ভিক্ষুক আব্দুল বারেকের বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ থাকায় মামলাটি রুজু করা হয়েছে। তবে বিষয়টির তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অপরদিকে ভিক্ষুককে নির্যাতনকারী মাসুদ মিয়ার বিরুদ্ধেও ভিক্ষুক আব্দুল বারেকের স্ত্রী পারভীন আক্তার বাদী হয়ে একই সময় ৩২৫ ধারায় পৃথক একটি মামলা রুজু করা হয়েছে জানিয়ে ওসি বলেন, ধান চুরির অভিযোগে ওই ভিক্ষুককে বাঁশের খুঁটিতে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ার পরপরই বুধবার (২৮ এপ্রিল) দিনগত রাতে নির্যাতনকারী গোবিন্দশ্রী বারঘরিয়া গ্রামের মৃত মোক্তার হোসেনের ছেলে মাসুদ মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়। ভিক্ষুক আব্দুল বারেকের সাথে নির্যাতনকারী মাসুদ মিয়াকেও নেত্রকোনা আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানান ওসি।

এদিকে ধান চুরির অভিযোগে ভিক্ষুক আব্দুল বারেকের বিরুদ্ধে চুরির মামলা রুজু হওয়ার ঘটনায় এলাকার সচেতন মানুষের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

আরও পড়ুন : ধান চুরির অভিযোগে বাঁশের খুঁটিতে বেঁধে বৃদ্ধ ভিক্ষুককে নির্যাতন



নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মদন পৌর শহরের এক বাসিন্দা জানান, ভিক্ষুক আব্দুল বারেক যদি কিছু ধান চুরি করেও থাকেন তবুও তাকে এভাবে নির্মম প্রহার করাটা মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন। একে তো তিনি চুরির অভিযোগে অমাবনিক নির্যাতনের শিকার হলেন। আবার চুরির মামলার আসামীও হলেন। পুলিশ ভিক্ষুকের বিরুদ্ধে চুরির মামলা নিয়ে নির্যাতনকারীকে বাঁচানোর চেষ্টা করছেন বলেও মন্তব্য করেন তিনি।




এ নিয়ে ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার বনহাটি গ্রামের মৃত আব্দুল গফুরের ছেলে ভিক্ষুক আব্দুল বারেকের স্ত্রী পারভিন আক্তারের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, প্রতি বছর বৈশাখ মাসে আমার স্বামী গোবিন্দশ্রী এলাকায় ধান ভিক্ষা করতে যান। এ বছর মাসুদের বাড়িতে তিনি ভিক্ষা করা ধানগুলো একত্র করে রেখেছিলেন। মাসুদের ভাই জুয়েল আমার স্বামীর একত্র করা ৯ মণ ধান নিয়ে যায়। এ নিয়ে তাদের মধ্যে প্রথমে কথা কাটাকাটি হয়। পরে মাসুদ এসে আমার স্বামীকে চুরির অপবাদ দিয়ে বেঁধে নির্যাতন করেছে। আমার স্বামী কোনোদিন চুরি করতে পারেন না। এখন আবার তারা আমার স্বামীর নামে চুরির মামলা করেছে। আমি আমার স্বামীর নামে করা মামলা বাতিল চাই এবং আমার স্বামীকে মারপিট করার বিচার চাই।

এর আগে গত বুধবার (২৮ এপ্রিল) আধা বস্তা ধান চুরির অভিযোগে মাসুদ মিয়া ভিক্ষুক আব্দুল বারেককে বাঁশের খুঁটিতে বেঁধে রেখে ঘণ্টাব্যাপী মধ্যযুগীয় কায়দায় অমানবিক নির্যাতন করে। পরে কিছু ধানসহ মদন থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা করে নির্যাতনকারীরা। পুলিশ আহত ভিক্ষুক আব্দুল বারেককে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে চিকিৎসা করানোর পর থানা হেফাজতে নিয়ে রাখেন। এরই মধ্যে ওইদিনই ভিক্ষুককে নির্যাতনের একটি ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে পুলিশ রাতেই অভিযুক্ত মাসুদ মিয়াকে গ্রেফতার করে।

ভয়েস টিভি/ডি
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/43291
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ