Printed on Mon Jan 25 2021 2:09:18 AM

‘ভাতিজাকে বাঁচাতে গিয়ে’ ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে শ্রমিক নিহত

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি
অপরাধসারাদেশ
ছুরিকাঘাতে
ছুরিকাঘাতে
ভৈরবে ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে এক কয়লা শ্রমিক নিহত হয়েছে। ২৮ ডিসেম্বর সোমবার রাতে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি ভাস্কর্য ‘দুর্জয় ভৈরব’ চত্বর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ব্যক্তি সুনামগঞ্জ জেলার বিশ্বম্ভপুর উপজেলার বাটগাও গ্রামের হিরু মিয়ার ছেলে এহসানুল হক (২২)। একই ঘটনায় আজিজুল হক (২০) নামে আরও এক ব্যক্তি আহত হয়। এহসানুল ও আজিজুল সম্পর্কে চাচা ভাতিজা।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, ‘ভৈরবে কয়লা মোকাম রয়েছে। কয়লা শ্রমিক হিসেবে কাজ করার জন্য এহসানুল দুই সপ্তাহ আগে বাড়ি থেকে ভৈরবে আসে। কয়লা মোকামে তাঁর ভাতিজা আজিজুল হকও কাজ করতেন। দুইজনই বাড়ি যাবেন বলে সোমবার রাত দশটা ৩০ মিনিটের দিকে বাসস্ট্যান্ড আসে। ওষুধ কেনার জন্য আজিজুল একটি ফার্মেসিতে যাবার সময় দুইজন ছিনতাইকারী তাঁর গতিরোধ করে। তাঁকে মারধর করার সময় বিষয়টি এহসানুলের চোখে পড়ে। আজিজুলকে বাঁচাতে এহসানুল এগিয়ে যান। তখন ছিনতাইকারীরা তাঁর বুক ও পায়ে ছুরিকাঘাত করে চলে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় এহসানুলকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে নেয়ার পর চিকিৎসকরা জানান হাসপাতালে আনার আগেই এহসানুলের মৃত্যু হয়।

আজিজুল হক বলেন, আমাকে ধরেই মারধর শুরু করে। তখন আশেপাশে অনেক মানুষ ছিল। চিৎকার করলেও কেউ আমাকে রক্ষায় কেউ এগিয়ে আসেনি। শেষে আমার চাচা (এহসানুল) আসে। তখন তিনি ছিনতাইকারীদের ধরে ফেলতে চেষ্টা করেন।

ছিনতাইকারীদের হাতে এহসানুল হকের মৃত্যু হয়েছে- এমন তথ্য মানতে নারাজ স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন।

ভৈরব থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শাহিন বলেন, ঘটনার বর্ণনা ও ধরণ শুনে কোনভাবেই মনে হচ্ছে না বিষয়টি ছিনতাই সম্পর্কিত ছিল। কারণ দুর্বৃত্তরা কারো কাছ থেকে কিছু নেয়নি। আজিজুল সব কিছু দিয়ে দিতে চেয়েছিলেন। তাও নেয়নি। আমাদের মনে হচ্ছে কাউকে মারার জন্য দুর্বৃত্তরা টার্গেট নিয়ে এসেছিলেন। আজিজুল ও এহসানুল দুর্বৃত্তদের ভুল টার্গেটের শিকার হয়ে থাকতে পারেন।

ভয়েস টিভি/ডিএইচ
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/30097
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ