Printed on Thu Jun 30 2022 7:32:17 PM

৩৭ কোটি ৩৮ লাখ টাকার মালিক নেই, সন্দেহ কালো টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক
জাতীয়
টাকার মালিক
টাকার মালিক
ব্যাংকের হিসাব নাম্বার আর টাকা আছে। তবু কোনো খোঁজ-খবর নেই অ্যাকাউন্টধারীর। কমপক্ষে ১০ বছর লেনদেন হয় না এমন ব্যাংক হিসাব থেকে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে অর্থ স্থানান্তরের ঘটনা বাড়ছে প্রতি বছর। ২০১৭ সালে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোতে গ্রাহকের অদাবিকৃত আমানত ছিল ১৫ কোটি ২১ লাখ টাকা। ৫ বছরের ব্যবধানে ২০২১ সালে দ্বিগুণের বেশি বেড়ে সে সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৩৭ কোটি ৩৮ লাখ টাকা।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হিসাব অনুযায়ী, ২০২০ সালে গ্রাহকের দাবি না করা ৩৪ কোটি ৪৫ লাখ টাকার বেশি জমা দিয়েছে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো।

এমটিবি ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, অনেকের হয়তো মনে নেই। অনেকে দেশের বাইরে চলে গেছেন। আবার অনেকে হয়তো মারা গেছেন- এরকমও আছে। আবার হয়তো কিছু কালো টাকাও আছে। হয়তো নিতে গেলে নমিনীর দায়ভার নিতে হবে।

ব্যাংক আইন অনুযায়ী, নির্ধারিত সময়ের পর গ্রাহকের অদাবিকৃত অর্থ কেন্দ্রীয় ব্যাংক ব্যবহার করতে পারে। যদিও গ্রাহকের দাবির প্রেক্ষিতে যেকোনো সময় আমানতের টাকা ফেরত দিতে হবে বলে জানান বিশ্লেষকরা।

পিআরআই’র নির্বাহী পরিচালক আহসান এইচ মনসুর বলেন, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এই টাকা হয়তো কেউ দাবি করবে না। আবার কেউ দাবি করতেও পারে। আর টাকাটা বাংলাদেশ ব্যাংক সরকারি কোষাগারে দিয়ে দেবে।

মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, গ্রাহকের কাগজপত্র যদি সঠিক থাকে তাহলে গ্রাহক অবশ্যই তার টাকা ফেরত পাবেন।

গ্রাহকের খোঁজ না পাওয়া ব্যাংক হিসাবগুলোতে জমা আছে ন্যূনতম ১০ থেকে লাখ টাকা পর্যন্ত।

ভয়েসটিভি/এমএম
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/66910
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2022 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ