Printed on Wed Oct 20 2021 6:18:12 AM

তালেবানের হুমকি সত্বেও যেসব বলিউড সিনেমার শুটিং হয়েছিল আফগানিস্তানে

বিনোদন ডেস্ক
বিনোদনভিডিও সংবাদ
শুটিং
শুটিং
আফগানিস্তান যেন প্রাচীন সংস্কৃতি আর প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের আধার। তাই স্বাভাবিকভাবেই বলিউডের সিনেমা নির্মাতাদের আগ্রহ ছিল আফগানিস্তানে শুটিংয়ের। তবে সেদেশের রাজনৈতিক অস্থিরতা ও তালেবানদের কঠোরতার কারণে সব সময় তা সম্ভব হয়নি। এরপরও তালেবানদের রক্তচক্ষু ও হুমকি উপেক্ষা করে আফগানিস্তানে অন্তত এক ডজন বলিউড সিনেমর শুটিং হয়েছে।

সম্প্রতি আফগানিস্তানে আবার তালিবানদের দখল গোটা বিশ্বকে নাড়িয়ে দিয়েছে। সেদেশের নারী স্বাধীনতাসহ সংস্কৃতি ও ক্রীড়াঙ্গন মুখ থুবড়ে পড়তে পারে বলে বিশ্লেষকদের ধারণা। তালেবানদের ক্ষমতায় থাকাবস্থায় হয়তো বলিউডের আর কোনো সিনেমার শুটিং সেদেশে হনে না।

৪৬ বছর আগে আফগানিস্তানের প্রথম বলিউড ছবির শুটিং হয়েছিল। ছবির নাম ‘ধর্মাত্মা’। ছবিটি মুক্তি পেয়েছিল ১৯৭৫ সালে। ছবিটির প্রধান অভিনেতা, পরিচালক ও প্রযোজক ছিলেন ফিরোজ খান। একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, কাবুল বিমানবন্দরে স্থানীয়দের সঙ্গে করমর্দন করছেন হেমা ও ‘ধর্মাত্মা’ টিমের অন্যান্যরা। তাদের দেখতে কাবুল বিমানবন্দরে প্রচুর ভিড় হয়েছিল। ভিডিওতে দেখা গিয়েছে ড্যানি ডেনজংপাকেও।

১৯৯২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি 'খুদা গাওয়া'। ছবিটি পরিবাচলনা করেছেন মুকুল এস আনন্দ। অমিতাভ বচ্চন এবং শ্রীদেবী এই ছবিতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। এ ছবির কিছুর অংশের শুটিং হয়েছিল আফগানিস্তানে।

সাইফ আলি খান ও কারিনা কাপুর অভিনীত ছবি এজেন্ট বিনোদ এর একদম শুরুর দৃশ্য তোলা হয়েছিল আফগানিস্তানের মাটিতে। ফারদিন খান এবং সেলিনা জেটলি অভিনীত রোম্যান্টিক থ্রিলার 'জানাশিন'-র শুটিং হয়েছিল আফগানিস্তানে।

সঞ্জয় দত্ত-নার্গিস ফাকরিদের নিয়ে বলিউড ছবি ‘তোরবাজ’-এর শুটিং হয়েছিল আফগানিস্তানে। কারণ এই ছবির গল্প ছিল আফগানিস্তানকে কেন্দ্র করে। আফগানিস্তানে শিশু আত্মঘাতী বোমারুদের উপর ভিত্তি করে তৈরি হয়েছিল এ ছবির চিত্রনাট্য। কাজেই খুব স্বাভাবিক কারণেই সে দেশের মাটিতেই ছবির বেশ কিছুটা অংশ শুটিং করা হয়েছিল। ২০০৩ সালে মুক্তি পেয়েছিল মনীষা কৈরালা অভিনীত ‘এসকেপ ফ্রম তালিবান’ ছবিটি।

জন আব্রাহাম এবং আরশাদ ওয়ার্সি অভিনীত ছবি 'কাবুল এক্সপ্রেস'-র একটি উল্লেখযোগ্য অংশ আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে শ্যুট করা হয়েছিল।

২০০৬ সালে এই ছবিটি ছবিটি মুক্তি পাওয়ার সময় আফগানিস্তান থেকে তালেবানদের আধিপত্য কিছুটা কমেছিল। গ্রীন প্যালেস, বালা হিসার ফোর্ট, দরুল আমান প্যালেস এবং পাঞ্চশির উপত্যকায় ছবির শ্যুটিং হয়েছিল।

'কাবুল এক্সপ্রেস'-র পরিচালক কবির খান শুটিংয়ের এই অভিজ্ঞতা শেয়ার করে জানিয়েছিলেন, ছবির সঙ্গে যুক্ত কলা কুশলীরা তালেবানদের কাছ থেকে হত্যার হুমকি পেয়েছিলেন। ছবিতে আফগানিস্তানের হানিফও একটি চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। নিজের অভিনয় কেরিয়ার গড়ার জন্য তালিবানরা অপহরণ করে নির্মমভাবে পিটিয়েছিলেন তকে। এই চলচ্চিত্র নির্মাণের সময় আফগান সরকার কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা করেছিল।

ভয়েস টিভি/এসএফ
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/51471
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ