Printed on Tue May 18 2021 2:07:47 AM

সংঘর্ষের পর থমথমে বসুরহাট, আটক ২৭

নোয়াখালী প্রতিনিধি
সারাদেশ
থমথমে
থমথমে
নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় ২৭ জনকে আটক করেছে পুলিশ। ১০ মার্চ বুধবার উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে ককটেল, লোহার রডসহ দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এদিকে ৯ মার্চ মঙ্গলবার বিকেলে ও রাতে সংঘর্ষের পর থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে বসুরহাটে। পৌরসভা এলাকায় উপজেলা প্রশাসন ১৪৪ ধারা জারি করেছে। এতে বসুরহাট বাজারের বেশির ভাগ দোকানপাটই বন্ধ। সাধারণ মানুষ ভয়ে ঘর থেকে বের হচ্ছে না।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহেদুল হক রনি জানান, আটককৃতদের বিষয়ে যাচাই বাচাই চলছে। কে কোন পক্ষের লোক এখনো নির্ধারণ করা যায়নি। তবে খতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তিনি আরো জানান, পরিস্থিতি এখন পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এছাড়াও পুলিশ যে কোন অনাকাঙ্খিত ঘটনা এড়াতে সর্তক অবস্থানে রয়েছে।

মঙ্গলবার রাতে প্রশাসন ১৪৪ ধারা জারির পর বসুরহাট-দাগনভূঞা সড়কের মহাজনদিঘি, বসুরহাট-কবিরহাট সড়কের লোহার পোল এলাকাসহ বিভিন্ন সড়কে কাদের মির্জার অনুসারীরা ব্যারিকেড দিয়েছেন। ফেনী ও কবিরহাট এলাকা থেকে কেউ যাতে বসুরহাটে না আসতে পারে, সে জন্য তারা সড়কে গাছের গুঁড়ি ফেলে এবং যাত্রীবাহী বাস আড়াআড়ি করে রেখে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করেন। আজ সকাল ৯টার দিকে পুলিশ স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় প্রতিবন্ধকতাগুলো সরিয়ে নেয়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল রাত সাড়ে ৯টায় বসুরহাট বঙ্গবন্ধু চত্বর ও পৌরসভা ভবন এলাকায় কাদের মির্জা ও মিজানুর রহমান বাদলের অনুসারীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। গতকাল রাত ১২টার পর পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযানে নামে। অভিযানের সময় একটি পিকআপ ভ্যানে থাকা একসঙ্গে ২৭ জনকে আটক করা হয়। তাদের বেশির ভাগই তরুণ ও যুবক।

জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার দীপক জ্যোতি খীসা ২৭ জনকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বসুরহাট-চাপরাশিরহাট সড়ক থেকে তাদের আটক করা হয়েছে। আটক ব্যক্তিদের বহনকারী পিকআপ ভ্যান থেকে বেশ কিছু ককটেল, ইটপাটকেল ও লোহার রড উদ্ধার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

৯ মার্চ বিকেল উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রতিবাদ সভায় হামলার জের ধরে সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত বসুরহাট বাজারের পৌরসভা প্রাঙ্গণ এলাকার বিভিন্ন স্থানে থেমে থেমে দফায় দফায় কাদের মির্জা ও বাদল অননুসারী দুুই পক্ষের মধ্যে এ সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আলাউদ্দিন নামে এক যুুুুবলীগ কর্মী গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয় এবং উভয় পক্ষের ১২ জন গুলিবিদ্ধসহ অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়।

ভয়েস টিভি/এসএফ
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/38226
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ