Printed on Mon Jan 25 2021 12:44:51 AM

দুই টাকার মাস্টার!

ফরিদপুর প্রতিনিধি
সারাদেশ
দুই টাকার
দুই টাকার
দরিদ্র পরিবারের ছেলে মেয়েরা স্কুল শিক্ষকের পাঠদানের বাইরে প্রাইভেট পড়তে পারে না। করোনাকালে সারা দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ। মাসে দুই টাকার বিনিময়ে এসব দরিদ্র শিক্ষার্থীদের প্রতিদিন সকাল-সন্ধ্যা পড়ানো শুরু করেছেন সুলতান মাহামুদ পার্থ নামের এক তরুণ।

তিনি ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গার বাকাইল গ্রামের বাসিন্দা ও নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট) বিভাগের তৃতীয় বর্ষের। এই টিউশনির টাকা জমিয়ে তিনি গড়ে তুলেছেন ভ্রাম্যমাণ লাইব্রেরি। গ্রামের প্রতিটি বাড়ির দোড়গোড়ায় বই পৌঁছে দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছেন তিনি।

সুলতান মাহামুদ পার্থ জানান, এলাকার অনেক দরিদ্র পরিবারের সন্তানের কথা চিন্তা করে প্রাইভেট পড়ানো শুরু করেছি। নাম মাত্র মাসে দুই টাকা নিচ্ছি। বর্তমানে ১৫ জন শিক্ষার্থীকে পড়াচ্ছি। এর মধ্যে প্রথম থেকে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা রয়েছে।

তিনি জানান, আমার বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় বাড়িতেই আছি। ভাবলাম কিছু করা উচিৎ। সেই ভাবনা থেকেই এই উদ্যোগ। প্রায় দুই মাস যাবৎ এই কার্যক্রম শুরু করেছি। এছাড়া টিউশনির টাকা দিয়ে একটি ভ্রাম্যমাণ লাইব্রেরী করেছি। আমার ইচ্ছা বাড়ি বাড়ি গিয়ে বই পৌঁছে দিবো, আমি চাই এলাকার তরুণ-তরুণীরা বই পড়ার প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠুক।

পার্থ জানান, এই বয়সে অনেকে মাদকাসক্ত হয়ে যাচ্ছে। তারা যদি বই পড়ার প্রতি মনোনিবেশ করে তাহলে আর খারাপ পথে যাবে না। আমি সকলের কাছে এ ব্যাপারে সার্বিক সহযোগিতা চাই।

পার্থর কাছে পড়তে আসা দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র আশিক শেখের পিতা রাশেদ শেখ জানান, আমরা গরীব মানুষ। স্কুল বন্ধ, টাকার অভাবে ছেলেকে প্রাইভেট পড়াতে পারি না। পার্থর কাছে পড়তে পাঠাই। মাত্র দুই টাকা মাসে দেই। এলাকায় পার্থর মত সবাই এগিয়ে আসলে আমাদের ছেলে মেয়েদের পড়াশুনা করাতে কষ্ট হতোনা।

আলফাডাঙ্গা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মনিরুল ইসলাম বলেন, বর্তমান শিক্ষার্থীদের হাতে স্মার্ট ফোন রয়েছে। তারা সেটা নিয়ে অধিকাংশ সময় ব্যয় করে। এরা বই পড়তে চায় না। এলাকার তরুণ মেধাবী শিক্ষার্থী পার্থ যে মহতি উদ্যোগ নিয়েছে সত্যি প্রশংসার দাবি রাখে।

তিনি বলেন, নাম মাত্র দুই টাকা নিয়ে প্রাইভেট পড়াচ্ছেন, এ কথা শুনলেই মন ভাল হয়ে যায়। আমি সবাইকে বলবো পার্থ যে কাজটি করছে তাকে অনুসরণ করুক তারা। যে তরুণ তরুণী ইন্টারনেটে আসক্ত হয়ে বিপথগামী হয়ে পড়েছে, তাদের বলবো মোবাইলে সময় না দিয়ে বই পড়তে। বই পড়ার বিকল্প নেই। পার্থর জন্যে শুভ কামনা রইল।

আলফাডাঙ্গা পৌরসভার মেয়র সাইফুর রহমান বলেন, সুলতান মাহামুদ পার্থ নিঃসন্দেহে একটি ভালো কাজ করছে। ভালো কাজের ব্যাপারে তাকে পৌরসভার পক্ষ থেকে সার্বিক ভাবে সহযোগিতা করবো।

আলফাডাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান একেএম জাহিদুল হাসান জানান, আমার উপজেলার মধ্যে সুলতান মাহামুদ পার্থ এমন কাজ করছে তাকে উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাই। আমি চাইবো তার এই কর্মকাণ্ড দেখে অন্য ছেলে মেয়েরাও যেন তার পাশে দাঁড়ায়। আমরা এ কাজের জন্যে তাকে সাহায্য করবো।

আরও পড়ুন : বঙ্গবন্ধুর লেখা যত বই

ভয়েস টিভি/এমএইচ
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/30101
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ