Printed on Sat Sep 18 2021 12:40:09 AM

বিএনপির আমলে শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংস করা হয়েছিল : দীপু মনি

নিজস্ব প্রতিবেদক
জাতীয়
বিএনপির আমলে শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংস করা হয়েছিল
বিএনপির আমলে শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংস করা হয়েছিল
বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালে এ দেশের শিক্ষা ও নির্বাচনী ব্যবস্থাসহ সবকিছু ধ্বংস করে দিয়েছিল বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। ২৩ আগস্ট সোমবার বঙ্গবন্ধুর ৪৬তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতি আয়োজিত ভার্চুয়াল এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী এ কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বিএনপি সরকারের শাসনামলে শিক্ষা ব্যবস্থা, রাজনৈতিক ব্যবস্থা, নির্বাচনী ব্যবস্থাসহ সবকিছুকে ধ্বংস করা হয়েছিল। স্বাধীনতা বিরোধী চক্র ষড়যন্ত্র তৈরি করেছিল। বঙ্গবন্ধুকন্যার নেতৃত্বে এ দেশের সব শ্রেণি-পেশার মানুষকে সাথে নিয়ে উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার কাজ করে যাচ্ছি।

দীপু মনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর শিক্ষা ভাবনা বুঝতে চাইলে আওয়ামী লীগের জন্মকালীন ইশতেহার ও ’৭০ সালের নির্বাচনী ইশতিহার পড়তে হবে। স্বাধীন দেশে বঙ্গবন্ধু প্রাথমিক শিক্ষাকে অবৈতনিক ও জাতীয়করণ এবং কুদরাত-এ-খুদা শিক্ষা কমিশন গঠন করেছিলেন। আমাদের উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে গবেষণা ও প্রকাশনা বাড়াতে হবে, সঠিক ইতিহাস জানতে হবে।

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার মান উন্নয়নে সরকারের সহযোগী। সেই সহযোগী হিসেবে তাদের বিরাট ভূমিকা রয়েছে। যেখানে তাদের ইতিবাচক ভূমিকা থাকবে সেখানে সরকার ষোলো আনা সহযোগিতা করবে, পারলে আরও বেশি করবে। আর কোথাও যদি নেতিবাচক দিক থাকে তাহলে আসুন আমরা সেগুলো চিহ্নিত করি। নেতিবাচক দিকগুলো আমাদের দূর করতেই হবে।

তিনি বলেন, শিক্ষা ব্যবস্থায় অনেক অব্যবস্থাপনা ও জটিলতা আছে। এটা কাটিয়ে উঠতে হবে। আমাদের কোথাও কোথাও হয়তো দুর্বলতা রয়েছে, সে দুর্বলতার সুযোগ অনেকেই নেয়। আমরা আইনগুলো পর্যালোচনার চেষ্টা করছি। আমরা প্রতিষ্ঠানগুলোর সক্ষমতা বৃদ্ধি করার চেষ্টা করছি। বিশেষ করে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন যখন তৈরি হয়েছিল তখন দেশে মাত্র ছয়টি বিশ্ববিদ্যালয় ছিল। কিন্তু এখন দেড়শ’টিরও বেশি বিশ্ববিদ্যালয়। কাজেই আজকের পরিবেশের সঙ্গে এবং আগামী দিনের জন্য সক্ষম একটি বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন প্রয়োজন। সে কারণে আইন পরিবর্তন করা, আইন সংশোধন করা, যেখানে যা কিছু করা প্রয়োজন আমরা করছি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ৭৫ পরবর্তী প্রজন্মকে ইতিহাসের একটা অন্ধকারের মধ্যে রেখে বড় করা হয়েছে। যে কারণে তারা বাংলাদেশের সত্যিকারের ইতিহাস ৯৬ সালের আগে জানতে পারেনি। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে যথাযথ ভূমিকা পালন করতে হবে।

এর আগে অনুষ্ঠানে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী এনামুল হক শামীম বলেন, অনেক বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে যেগুলো উঠে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে। তাদের সহযোগিতা করা প্রয়োজন। নিয়ম মেনে পরিচালনার চেষ্টা করছে সেসব বিশ্ববিদ্যালয়কে সহযোগিতার জন্য শিক্ষামন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন এনামুল হক শামীম। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় যাতে সমস্যায় না পড়ে সে বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল জানান, শিক্ষা গবেষণায় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়কে সরকার সহায়তা দেবে। তিনি বলেন, সরকার আগামীতে আরও অনেক অর্থ সহযোগিতা করবে। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের যাদের ফান্ড আছে তাদের খেয়াল রাখতে হবে, সেই অর্থ গবেষণায় খরচ করতে হবে, বিলাসবহুল সামগ্রীতে কেনার জন্য নয়।

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির সভাপতি শেখ কবির হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক কাজী শহীদুল্লাহ, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন, বাংলাদেশ অ্যাক্রিডিটেশন কাউন্সিলের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মেসবাহউদ্দিন আহমেদ, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বেনজীর আহমেদ, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির কার্যকরী সদস্য নুরুল ফজল বুলবুল।

আরও পড়ুন : যে অভ্যাস মানুষকে ধ্বংস করে

ভয়েস টিভি/ এএন
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/52073
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ