Printed on Tue Sep 21 2021 4:38:53 PM

বিটিএস-এর নতুন রেকর্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক
বিশ্বজাতীয়ভিডিও সংবাদ
বিটিএস-এর
বিটিএস-এর
বিশ্বজুড়ে বিটিএস–উন্মাদনা কেবল বেড়েই চলেছে। ভি, জাংকুক, জিমিন, সাগা, জিন, জে-হোপ ও আরএম—এই সাত তরুণকে নিয়েই বিটিএস। এবার নতুন রেকর্ড গড়লো তারা। এমটিভি মিউজিক অ্যাওয়ার্ড ভিএমএ-এর পাঁচ ক্যাটাগরিতে মনোনয়ন পেয়েছে বিটিএসের ‘ডায়নামাইট’ ও ‘বাটার’। এখন পর্যন্ত ভিএমএ-এর ইতিহাসে এটাই সবচেয়ে বেশি মনোনয়ন।

বর্ষসেরা গানের মনোনয়ন পেয়েছে ‘ডায়নামাইট’। এ ছাড়া সেরা পপ, সেরা কে-পপ, সেরা কোরিওগ্রাফি ও সেরা সম্পাদনার জন্য পেয়েছে ‘বাটার’।

তবে ‘আর্টিস্ট অব দ্য ইয়ার’-এর তালিকায় স্থান না পাওয়ায় বিটিএস ভক্তরা ক্ষুব্ধ।

অন্যদিকে আরেকটি সুসংবাদ হলো এখন থেকে অফিসিয়াল স্যামসাং গ্যালাক্সি ফোনের সাউন্ড হবে বিটিএস সদস্য সুগা-এর কম্পোজ করা জিঙ্গেল। ২০১১ সালে রচিত জিঙ্গেলটি এখন থেকে সমস্ত স্যামসাং ফোনের ডিফল্ট রিংটোন হিসেবে থাকবে।

কে–পপ রাজ্যের মেগাস্টার বিটিএসের এক টুইট এই মুহূর্তে আলোচনায় বিশ্বজুড়ে। তাঁরাও ‘এশীয়’ হিসেবে বৈষম্য আর বর্ণবাদী আচরণের শিকার হয়েছিলেন। সেই দুঃখ–কষ্টের কথাই বিশ্বের সঙ্গে ভাগ করে নিলেন সেখানে। কোরিয়ান আর ইংরেজি—দুই ভাষায় লেখা ওই বার্তা নিয়ে চর্চা চলছে সংগীতের দুনিয়ায়।

ওই টুইটে লেখা হয়েছে, ‘তারা জানেন, বর্ণবাদী আচরণের শিকার হওয়ার পর কীভাবে আত্মবিশ্বাস ভেঙেচুরে যায়। নিজেদের “ছোট” আর ক্ষমতাহীন বলে মনে হয়। কোনো কারণ ছাড়াই তাদের বলা হয়েছিলো, “তোমরা কেন এ রকম অদ্ভুত দেখতে? ও মা, তোমরাও ইংরেজিতে কথা বলো!” তারা বলছেন, তাদের শুধু একটাই চাওয়া, বিশ্বজুড়ে বর্ণবাদ নিপাত যাক।’

এর আগেও বর্ণবাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছিল বিটিএস। ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ আন্দোলনে ১০ লাখ ডলার বা ৮ কোটি ৮৫ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছিল বিটিএস। তাদের অনুসরণ করে একই তহবিলে একই পরিমাণ অর্থ দিয়েছিলেন তাদের ভক্তরাও।

অন্য দেশের মতো বাংলাদেশেও রয়েছেন বিটিএসের ভক্ত। তাঁরাও বসে নেই। বাংলাদেশের কে-পপ গানের ভক্তরা বিশ্বের অন্য দেশের ভক্তদলের মতোই তৎপর। নিজেদের মধ্যে নিয়মিত যোগাযোগ রাখেন, বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন এবং প্রিয় দলের মতো করেই অংশ নেন বিভিন্ন সেবামূলক কার্যক্রমে।

করোনার পাশাপাশি এ বছর বন্যাতেও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের অনেক দুস্থ ও দরিদ্র মানুষ। এমন মানুষের জন্য পাশে দাঁড়িয়েছেন বিটিএস আর্মি বাংলাদেশের সদস্যরা। ঈদে বন্যার্ত মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর লক্ষ্যে কুড়িগ্রাম ও সিরাজগঞ্জ অঞ্চলে ত্রাণ কর্মসূচির আয়োজন করেন।

শুধু এটাই নয়, এর আগেও ‘বিটিএস আর্মি অব বাংলাদেশ’ বিটিএস বা এর সদস্যদের জন্মদিনে এ ধরনের দাতব্য কাজ করেছে। ২০১৩ সালের জুনে যাত্রা শুরু করেছিল সাত সদস্যের বিটিএস। সে উপলক্ষে সারা পৃথিবীর বিটিএস আর্মিদের সঙ্গে একাত্ম হয়ে বাংলাদেশের বিটিএস আর্মিরাও উদ্‌যাপন করেন প্রিয় দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। আর্থিক অনুদান সংগ্রহ ও মানসিক স্বাস্থ্যের বার্তা প্রচারের কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে বিটিএসের বর্ষপূর্তি পালিত হয়।

মাত্র ৩৫ জন সদস্য নিয়ে ২০১৫ সালে যাত্রা করে বিটিএস আর্মি অব বাংলাদেশ। প্রতিবছর কয়েক শ ভক্ত মিলে একসঙ্গে মিট-আপের আয়োজন করেন। তাঁদের লক্ষ্য, মানুষের কাছে বিটিএসের ইতিবাচক বার্তা ও কাজগুলো পৌঁছে দেয়া।

ভয়েসটিভি/এএস
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/51252
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ