Printed on Mon May 17 2021 7:13:29 PM

ব্যাংকে দীর্ঘ লাইন, টাকা তোলার হিড়িক

নিজস্ব প্রতিবেদক
অর্থনীতি
ব্যাংকে
ব্যাংকে
করোনাভাইরাস সংক্রমণ মারাত্মক আকার ধারণ করায় ১৪ এপ্রিল থেকে সর্বাত্মক লকডাউনের ঘোষণা দিয়েছে সরকার। রফতানিমুখী শিল্প কারখানা ছাড়া সবকিছুই এ সময়ের মধ্যে বন্ধ থাকবে। এ বিধিনিষেধের আওতায় রয়েছে ব্যাংকসহ আর্থিক প্রতিষ্ঠানও। ফলে লকডাউনে বন্ধের আগের দিন ব্যাংকে টাকা উত্তোলনের হিড়িক পড়েছে। রাজধানীসহ সারাদেশের সব ব্যাংকের শাখায় ভেতরে-বাইরে দীর্ঘ লাইন দেখা গেছে।

ব্যাংক সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান, গ্রাহকের চাপ রয়েছে, তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ব্যাংকের ভেতরে প্রবেশ করানো হচ্ছে বলে বাইরে গ্রাহকের লাইনটা বড় হচ্ছে।

মতিঝিলে সব কটি ব্যাংকের সামনেই সকালে ব্যাংকিং কার্যক্রম শুরু হওয়ার আগে থেকেই ছিল লম্বা লাইন। সকাল ১০টার দিকে কয়েকজন গ্রাহকের সঙ্গে কথা হয়। তারা জানান, দেড় ঘণ্টা ধরে দাঁড়িয়ে আছেন। তবে গ্রাহকদের বেশির ভাগের মুখে মাস্ক ছিল।

জনতা ব্যাংকের দিলকুশা শাখায় টাকা তুলতে গেছেন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আবদুর রহিম। তিনি বলেন, ‘ব্যাংক বন্ধ থাকবে বলে টাকা তুলতে এসেছি। ৪০ মিনিট ধরে ব্যাংকের বাইরে লাইনে দাঁড়িয়ে আছি। ভেতরে একবার গিয়ে দেখে এসেছি অনেক ভিড়। আরও কতক্ষণ লাগবে, বুঝতে পারছি না।’

ওয়ান ব্যাংকের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা এক নারী গ্রাহক বেলা সোয়া ১১টার সময় জানান, ২০ মিনিট ধরে দাঁড়িয়ে আছেন তিনি। এখনো ভেতরেই ঢুকতে পারেননি।
কারওয়ান বাজারেও একই চিত্র চোখে পড়ে। প্রিমিয়ার ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংক, ঢাকা ব্যাংকসহ প্রায় সব কটি ব্যাংকের ভেতরে ও বাইরে গ্রাহকের ভিড়। এমনকি বুথের সামনেও গ্রাহক উপস্থিতি অন্য সময়ের চেয়ে অনেক বেশি দেখা গেছে।

ব্যাংক এশিয়ার বনানী শাখার এক কর্মকর্তা জানান, ‘আজ সকাল থেকে গ্রাহকের চাপ অনেক বেশি। আমরা চেষ্টা করছি স্বাস্থ্যবিধি মেনে কার্যক্রম চালাতে। ১০ জন করে একেকবারে ভেতরে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে। মূলত এ কারণেই ব্যাংকের বাইরে লাইনগুলো হচ্ছে। স্বাস্থ্য বিধি মানতে এখন একসঙ্গে সব গ্রাহককে ভেতরে প্রবেশ করতে দেওয়া যাচ্ছে না। এ কারণে গ্রাহকদের অপেক্ষা করতে হচ্ছে বেশি সময়। কোনো কোনো সময় গ্রাহকেরা নিজেদের মধ্যে বিবাদেও জড়িয়ে পড়ছেন।’

ইসলামী ব্যাংক কর্মকর্তা আফজাল হোসেন বলেন, লকডাউনে ব্যাংক লেনদেন বন্ধ থাকবে তাই গ্রাহকরা আজ ব্যাংকে ভিড় করছেন। কী পরিমাণ লেনদেন হচ্ছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আজ শুধু টাকা উত্তোলনই হচ্ছে। গত কয়েকমাসে এতো উত্তোলন দেখিনি যেটা সকালের শুরুতেই হচ্ছে। আমরা বিকেল ৩টা পর্যন্ত সেবা দেব। হয়ত পুরো সময়টাই গ্রাহকের ভিড় থাকবে।

গতকাল এক প্রজ্ঞাপনে বাংলাদেশ ব্যাংক জানায়, ১৪ থেকে ২১ এপ্রিল ব্যাংক বন্ধ থাকার কারণে এ সময়ে ব্যাংকগুলোর এটিএম বুথ থেকে দিনে এক লাখ টাকা পর্যন্ত নগদ উত্তোলন করা যাবে। বর্তমানে বেশির ভাগ ব্যাংকের কার্ড দিয়ে দিনে ৫০ হাজার টাকা ও কিছু ব্যাংক থেকে বেশি অর্থ উত্তোলন করা যায়। নিজ ব্যাংকের বুথ ও অন্য ব্যাংকের বুথ থেকে একই সীমা প্রযোজ্য হবে।

আরও পড়ুন: ‘কঠোর লকডাউনে’ এটিএম বুথ থেকে দ্বিগুণ টাকা উত্তলোন করা যাবে



ভয়েস টিভি/এসএফ



যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/41670
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ