Printed on Sun Jun 20 2021 1:05:27 PM

ভাস্কর্য হলেই ফেলে দেয়ার হুমকি বাবুনগরীর

নিজস্ব প্রতিবেদক
জাতীয়
ভাস্কর্য হলেই
ভাস্কর্য হলেই
‘ভাস্কর্য- এটা শরিয়তসম্মত নয়। আমি কোনো রাজনৈতিক নেতা বা দলের নাম নেব না। যারা ভাস্কর্য তৈরি করবে, টেনেহিঁচড়ে ফেলে দেয়া হবে। যার ভাস্কর্য হোক না কেন, আল্লাহর কসম, কেউ যদি আমারআব্বার ভাস্কর্য বসায়, আমি সর্বপ্রথম সেই ভাস্কর্য টেনে হিঁচড়ে ফেলে দেব। যে কোনো দলই স্থাপন করুক না কেন, সেটা শরিয়ত সম্মত হবে না। টেনে হিঁচড়ে ফেলে দেব।’

২৭ নভেম্বর শুক্রবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রামের হাটহাজারী পার্বতী উচ্চবিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত এক মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে হুমকি দিয়ে এসব বলেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমির জুনায়েদ বাবুনগরী। আল আমিন সংস্থা নামের একটি সংগঠন এই মাহফিলের আয়োজন করে।

মাহফিলে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের। কিন্তু তিনি উপস্থিত ছিলেন না। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য স্থাপনের বিরুদ্ধে বক্তব্য দেয়ায় মামুনুল হককে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে তাকে প্রতিহত করার ঘোষণা দিয়েছে জঙ্গিবাদবিরোধী ছাত্র যুব ঐক্য পরিষদ। এতে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে মাহফিল ঘিরে পুলিশি তৎপরতা জোরদার করা হয়েছিল।

তবে প্রশাসনের অনুরোধে মামুনুল হক ঢাকায় ফিরে গেছেন বলে জানান জুনায়েদ বাবুনগরী। মাহফিলে তিনি বলেন, আমরা শান্তি চাই। সংঘাত চাই না। মামুনুল হকও সমাবেশে আসতে আগ্রহী ছিলেন না। আমরা তাকে আনতে আগ্রহী নই। কিন্তু তারপরও কিছু কুচক্রী হাটহাজারী বাসস্ট্যান্ডসহ বিভিন্ন স্থানে মামুনুল হকের কুশপুত্তলিকা দাহ ও অশ্লীল স্লোগান দিয়েছে। এটি একজন আলেমের সঙ্গে বেয়াদবি।

পুরো বিশ্বে আস্তিক আর নাস্তিকের লড়াই চলছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ-বিএনপির মধ্যে কোনো লড়াই নেই। শুক্রবারের জুমার নামাজে তারাও পাশাপাশি দাঁড়িয়ে নামাজ আদায় করে। আওয়ামী লীগ ও বিএনপির পরস্পরের মধ্যে আত্মীয়তার বন্ধন হয়। মুসলমান হিসেবে সবাই ভাই ভাই। কিন্তু আস্তিক আর নাস্তিক কখনও এক হতে পারে না।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্যের উদ্ধৃতি দিয়ে জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন মদিনার সনদে দেশ চলবে। প্রধানমন্ত্রীর এ কথার সঙ্গে সহমত পোষণ করছি। আমরাও চাই মদিনার সনদে দেশ চলুক।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে বাবুনগরী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুকে অন্তর থেকে ভালোবাসি। আপনার আব্বা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব, আমরা উনাকে শ্রদ্ধা করি। এই বঙ্গবন্ধুকে কারা মেরেছে? কোনো মাদরাসার ছাত্র? কোনো আলেম-ওলামা? না, না। এই বঙ্গবন্ধুকে মেরে ফেলেছে বঙ্গবন্ধুর মানুষরা।’

‘আপনাকে সতর্ক করছি। আপনার ঘাড়ে যেসব নাস্তিকরা বসে আছে, তারাই আপনার ক্ষতি করবে, তারাই আপনাকে মেরে ফেলবে। আমরা আপনার দুশমন নই। আমরা দেশের শান্তি-শৃঙ্খলা চাই।’

মাওলানা মামুনুল হককে দেশের বিভিন্ন জায়গায় মাহফিলে বাধা দেয়ার প্রতিবাদে শুক্রবার ঢাকায় বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের লাঠিপেটার নিন্দা জানান হেফাজতে ইসলামের আমির।

আরও পড়ুন : সারাদেশে জাতির জনকের অসংখ্য ভাস্কর্য নির্মাণ করা হয়েছে : মোজাম্মেল হক

তিনি বলেন, তৌহিদি জনতার ওপর এমন লাঠিপেটা বড়ই দুঃখজনক। বিক্ষোভ মিছিল থেকে গ্রেফতার লোকজনকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মুক্তি না দিলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা দিতে হেফাজতে ইসলাম বাধ্য হবে।

ভয়েস টিভি/এমএইচ
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/25481
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ