Printed on Sun Sep 19 2021 11:37:31 PM

মশা নিধনে দোকানে কীটনাশক বিক্রির ব্যবস্থা করতে চাইলেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
জাতীয়
মশা নিধনে দোকানে কীটনাশক বিক্রির ব্যবস্থা
মশা নিধনে দোকানে কীটনাশক বিক্রির ব্যবস্থা
রাজধানীতে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব দ্রুত বাড়ছে। মশা ও ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সমন্বিত দমন ব্যবস্থা গ্রহণ করার কথা জানিয়েছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম। ২৫ আগস্ট বুধবার সচিবালয়ে সারাদেশে মশাবাহিত রোগ প্রতিরোধে সিটি করপোরেশন ও অন্যান্য মন্ত্রণালয়/বিভাগ, দফতর/সংস্থার কার্যক্রম পর্যালোচনার ১১তম আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, এডিস মশাসহ অন্যান্য মশা নিধনে আমরা কীটপতঙ্গ নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর নয়, ইন্ট্রিগ্রেটেড ভেক্টর ম্যানজমেন্ট করতে যাচ্ছি। এটার জন্য কাজ চলছে। সারা দেশের জন্য এটা করব। আমাদের কাছে ভরসার জায়গা হলো গ্রামে এডিস মশার বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভবনা খুবই কম। যেখানে নিচে মাটি আছে, সেখানে মশা ডিম পাড়লেও তা ফুটবে না। পরিবেশের ক্ষতি না হয় সেটা মাথায় রেখেই আমাদের পদক্ষেপ নিতে হবে।

মশার লার্ভা ধ্বংসের কীটনাশক দোকানে বিক্রির ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, আগে একটা কোম্পানি কীটনাশক আমদানি করত। এখন ওপেন করে দেওয়া হয়েছে। এখন কিছু বেসরকারি কোম্পানি সেই কীটনাশক আনছে। আমরা সেগুলো দোকানে দোকানে বিক্রির ব্যবস্থা করব।

তার ভাষ্য, রাজধানীতে উচ্চশিক্ষিত অনেকের বাড়িতে এডিস মশার প্রচুর লার্ভা পাওয়া যাচ্ছে। তবে প্রথম দফায় লার্ভা ধ্বংসের পরে আবার পরীক্ষা করে দেখতে গেলে সেসব জায়গায় বাধার সম্মুখীন হতে হচ্ছে।

মন্ত্রী বলেন, অনেক উচ্চশিক্ষিত মানুষের বাড়িতে হিউজ (প্রচুর) লার্ভা পাওয়া যাচ্ছে। সেখানে আমাদের সিটি করপোরেশনের লোকজন জোর করে গিয়ে অভিযান চালিয়ে লার্ভা ধ্বংস করে দিয়ে আসলো। আবার ১৫ দিন পর চেক করার জন্য গেলে, তারা বাধা দিচ্ছে। কারা এটা করেছে, তাদের নাম আমি বলবো না। এরপর দেখা গেল, ওইসব বাসায় তিনগুণ লার্ভা পাওয়া গেল। এটা খুবই অস্বস্তিকর। আমরা তো এটা আশা করতে পারি না।

বিধিনিষেধের কারণে নির্মাণাধীন বাড়ির কাজ বন্ধ থাকা, অনেকে বাসা খালি রেখে গ্রামের বাড়িতে চলে যাওয়া এবার এডিস মশা বৃদ্ধির অন্যতম কারণ বলেও মনে করেন মন্ত্রী।

ছাদ বাগান করলে ফুলের টবের মধ্যে কয়েক ফোঁটা কেরোসিন তেল দেওয়ার জন্য নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, এর ফলে প্রতিদিন পানি সরাতে হবে না। কেরোসিন দিলে সেখানে লার্ভা হবে না।

মো. তাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস ও ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন। সরাসরি উপস্থিত ছিলেন, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মোহাম্মাদ জাহাঙ্গীর আলম, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি (টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা) বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক জুয়েনা আজিজ, স্থানীয় সরকার বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, স্থাস্থ্যসেবা বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব লোকমান হোসেন মিয়া, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত বিভাগের সচিব মো. শহীদ উল্লা খন্দকারসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা।

আরও পড়ুন : এবার ড্রোন দিয়ে মশা মারবে ডিএনসিসি

ভয়েস টিভি/এএন
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/52257
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ