Printed on Sun Sep 19 2021 11:14:52 PM

সেই মার্কিন বিমানে ছিলেন আফগান পপ গায়িকা আরিয়ানা

নিজস্ব প্রতিবেদক
বিশ্বভিডিও সংবাদ
মার্কিন বিমানে ছিলেন আফগান পপ গায়িকা আরিয়ানা
মার্কিন বিমানে ছিলেন আফগান পপ গায়িকা আরিয়ানা
তালেবানদের আফগান দখলের পর কাবুল থেকে ছেড়ে যাওয়া সেই মার্কিন বিমানে আত্মরক্ষার্থে সেদিন পালিয়ে যায় দেশটির ৬৪০ জন নাগরিক। সেই মার্কিন বিমানে ছিলেন দেশটির সাংস্কৃতিক প্রথা ভেঙে নারী স্বাধীনতাপ্রত্যাশী পপ গায়িকা আরিয়ানা সাঈদও। তালেবানরা দেশটি দখলে নেওয়ার পর সেখানে আর বসবাস করার সাহস করেননি তিনি। ফলে তাকেও রীতিমতো প্রাণ ভয়ে ছাড়তে হলো দেশ।

আরিয়ানা কাজ করতেন দেশটির দু’টি টেলিভিশন চ্যানেলের জন্য। ছিলেন একটি গানের অনুষ্ঠানের বিচারকও। মার্কিন মডেলদের মতো খোলামেলা পোশাকেই ঘুরে বেড়াতেন গোটা আফগানিস্তান। প্রকাশ্য মঞ্চ বা অনুষ্ঠানে গাইতেন গান। তাকে বলা হয়ে থাকে গত ২০ বছরে দেশটির নারী স্বাধীনতা এবং নারী অধিকার রক্ষায় পথপ্রদর্শক। আরিয়ানাকে অনেকবার হত্যার হুমকি দেয়া হলেও পিছু হটেননি তিনি।

আরিয়ানার জন্ম আফগানিস্তানের কাবুলে হলেও তিনি জীবনের বেশির ভাগ সময় কাটিয়েছেন সুইজারল্যান্ড ও ইংল্যান্ডে। আট বছর বয়সে বাবা–মায়ের সঙ্গে পাকিস্তানের পেশোয়ারে চলে যান আরিয়ানা। সেখান থেকে সুইজারল্যান্ডে। ২০১১ সাল পর্যন্ত তিনি দেশে ফেরেননি।  মূলত সে সময় থেকেই তিনি পশ্চিমা জীবনে অভ্যস্ত হয়ে উঠতে থাকেন।

২০১১ সালেই আফগানদের মধ্যে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে আরিয়ানার গাওয়া ‘আফগান পেশারক’ গানটি। তখনই তিনি সিদ্ধান্ত নেন, মাতৃভূমিতে ফিরবেন। সেই থেকে আরিয়ানা আফগানিস্তানে বসবাস করতে থাকেন। তালেবানের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে দাপিয়ে বেড়িয়েছেন পুরো দেশ, বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন। হয়ে উঠেছেন ‘আফগানিস্তানের কণ্ঠ’। এই সাহসের জন্য পেয়েছেন ‘ব্রেভারি অ্যাওয়ার্ড’।

কাবুল তালেবানের হাতে চলে গেলে কয়েক রাত লুকিয়ে ছিলেন আরিয়ানা। পরে বুধবার মার্কিন বিমানে কাবুল ছাড়েন তিনি। কাবুল থেকে দোহা এবং সেখান থেকে আপাতত তুরস্কের ইস্তাম্বুলে রয়েছেন তিনি।

মার্কিন সৈনিকদের বহন করা সেই সি–১৭ বিমানে লুকিয়ে উঠে ইনস্টাগ্রামে একটি ছবি পোস্ট করেন আরিয়ানা। সেখানে লিখেছেন, ‘এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলাম, হয়তো আমিই হব মাতৃভূমি ছেড়ে পালিয়ে যাওয়া শেষ যোদ্ধা। মজার ঘটনা হচ্ছে, আজ সেটাই ঘটল আমার জীবনে।’

২০১৮ সালে নিজের ম্যানেজার হাসিব সাইদকে বিয়ে করেন আরিয়ানা। দেশ ছাড়ার সময় তিনিই আরিয়ানার সঙ্গে ছিলেন। আফগানিস্তানের নারী ফুটবলের জাতীয় দলের খেলোয়াড় নাদিয়া নাদিম আরিয়ানার ভাইয়ের মেয়ে। ভাগ্যের জোরে আরিয়ানা দেশ ছাড়তে পারলেও আফগান বহু নারী জানেন না তাঁদের জীবনে কী অপেক্ষা করছে।

আরও পড়ুন : যুবকের কামড়ে বিষধর সাপের মৃত্যু!

ভয়েস টিভি/ এএন
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/51973
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ