Printed on Tue Apr 13 2021 6:50:08 PM

মিয়ানমারের ওপর নিষেধাজ্ঞার হুমকি আমেরিকার

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক
বিশ্ব
মিয়ানমারের
মিয়ানমারের
সেনাবাহিনী ক্ষমতা দখল করায় মিয়ানমারের ওপর পুনরায় নিষেধাজ্ঞার হুমকি দিয়েছে আমেরিকার নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ১ ফেব্রুয়ারি সোমবার এক বিবৃতিতে তিনি এ হুমকি দেন।

একইসঙ্গে সেনাবাহিনীর ক্ষমতা দখল এবং দেশটির ক্ষমতাসীন দল ন্যাশনাল লীগ ফর ডেমোক্রেসির (এনএলডি) প্রধান ও নোবেল বিজয়ী অং সান সু চিকে আটক করার বিষয়টি ‘গণতন্ত্র ও আইনের শাসনে দেশের উত্তরণে প্রত্যক্ষ আক্রমণ’ বলে নিন্দা করেছেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রায়শই একা ‘আমেরিকা ফার্স্ট’ পদ্ধতির বিপরীতে আন্তর্জাতিক চ্যালেঞ্জের ক্ষেত্রে মিত্রদের সঙ্গে আরও সহযোগিতার জন্যে মিয়ানমারের সঙ্কটে বাইডেনের প্রতিশ্রুতির প্রথম বড় পরীক্ষা বলে মনে করা হচ্ছে।

এক বিবৃতিতে বাইডেন বলেছেন, একটি গণতান্ত্রিক সরকারকে উৎখাত করে জোর করে ক্ষমতা দখল কখনই দেশটির জনগণ মেনে নেবে না। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই আমরা।

যুক্তরাষ্ট্র সতর্ক করে বলেছে, সু চিসহ অন্যদের ছেড়ে না দিলে মিয়ানমারের দায়ী কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে যুক্তরাষ্ট্র।

বিবৃতিতে বাইডেন বলেন, দখলকৃত ক্ষমতা ছেড়ে দিতে এবং দেশটির নেতাকর্মী ও আটককৃত কর্মকর্তাদের মুক্তি দিতে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর ওপর চাপ দিতে হবে। এর জন্যে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

তিনি আরও বলেন, মিয়ানমারের গণতন্ত্রের অগ্রগতির জন্য যুক্তরাষ্ট্র নিষেধাজ্ঞা সরিয়ে নিয়েছিল। সেই ওয়াদা ভঙ্গ করলে যুক্তরাষ্ট্রের অনুমোদিত আইন এবং কর্তৃপক্ষের তাৎক্ষণিক পর্যালোচনা করা দরকার। এরপর যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে। এই কঠিন সময়ে মিয়ানমারের জনগণের পাশে যারা দাঁড়িয়েছেন তাদের বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।

গণতন্ত্রের পথে হাঁটা শুরু করার পর এক দশক আগে মিয়ানমারের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে যুক্তরাষ্ট্র। মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর এই পদক্ষেপকে দেশটির গণতান্ত্রিক উত্তরণকে নষ্ট করার ষড়যন্ত্র হিসেবে আখ্যায়িত করে যুক্তরাষ্ট্র উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

একই সঙ্গে সেনা অভ্যুত্থানের নিন্দা জানিয়েছে যুক্তরাজ্য এবং জাতিসংঘসহ বিভিন্ন দেশ।

রাখাইন রাজ্যে নতুন করে ভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর অধিবাসীদের বিরুদ্ধে 'যুদ্ধাপরাধ সংঘটন' করছে বলে অভিযোগ উঠেছে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে।

নতুন এক প্রতিবেদনে মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছে, ভিন্ন জাতির বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী গেরিলা বাহিনীর সদস্যরা সেনাবাহিনীর হাতে ঢালাওভাবে গ্রেফতার হওয়ার পাশাপাশি বিচারবহির্ভূত হত্যা এবং নির্যাতনের শিকার হয়েছে।

সেনাবাহিনী তাদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছে। ২০১৭ সালে রাখাইনে রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিরুদ্ধে অভিযানের সময় মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছিল মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে।

ভয়েস টিভি/এমএইচ
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/34332
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ