Printed on Wed Oct 20 2021 7:41:46 AM

বিনা অপরাধে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানকে পিটিয়ে হত্যা, আটক চার

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
অপরাধ
মুক্তিযোদ্ধার সন্তানকে পিটিয়ে হত্যা
মুক্তিযোদ্ধার সন্তানকে পিটিয়ে হত্যা
কুড়িগ্রামে মৃত এক বীরমুক্তিযোদ্ধার সন্তানকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় চারজনকে আটক করেছে পুলিশ। ১৮ আগস্ট বুধবার দিবাগত রাত ২টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

ঘটনাটি ঘটেছে ভূরুঙ্গামারী উপজেলার পাইকেরছড়া ইউনিয়নের ছিট পাইকেরছড়া গ্রামের শাহী মোড় এলাকায়। স্থানীয়দের ধারণা, পূর্বশত্রুতার জেরে এ ঘটনা ঘটেছে।

খুন হওয়া ব্যক্তির নাম ফরিদুল ইসলাম (৩২)। তিনি বঙ্গসানোহাট ইউনিয়নের মৃত বীরমুক্তিযোদ্ধা শামছুল হকের ছেলে।

খুনের দায়ে অভিযুক্ত সাইফুর রহমান (৪০) পাইকের ছড়া ব্রীজপাড় গ্রামের আব্দুল কাদেরের ছেলে। স্থানীয়রা জানান, সাইফুর এলাকার একজন চিহ্নিত সন্ত্রাসী।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে  সানোহাট বাজারের বাসিন্দা ফরিদুল ইসলাম  মোটরসাইকেলে ভূরুঙ্গামারী থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। পাইকেরছড়া গ্রামের শাহী মোড়ে পৌঁছালে তার মোটরসাইকেলের গতিরোধ করেন সাইফুর রহমান। সেখান থেকে ফরিদুলকে নিজ বাড়িতে নিয়ে গিয়ে বেদম মারপিট করেন সাইফুর। এক পর্যায়ে ফরিদুলের দু’টি পা হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে থেতলে দেয়।

খবর পেয়ে পুলিশ মারাত্মক আহত অবস্থায় ফরিদুলকে উদ্ধার করে। তাকে ভূরুঙ্গামারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে রাতেই রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত দুইটার দিকে ফরিদুল মারা যান।

এ ঘটনায় ১৯ আগস্ট বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ অভিযান চালিয়ে মূল ঘাতক সাইফুর রহমানসহ ৪ জনকে আটক করে। আটককৃতরা হলেন, সাইফুর রহমান, তার মা সাহেরা বেওয়া, ছোট ভাই সোহেল রানা ও রয়েল মিয়া।

বিনা অপরাধে তাকে পিটিয়ে মারা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক কয়েকজন বাসিন্দা বলেন, ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে নেশাগ্রস্ত অবস্থায় সাইফুর ও তার কয়েকজন সহযোগীসহ ফরিদুলের কাছে দু'হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেছিলেন। সেই টাকা না দেয়ায় ওই বছরের ১৪ই মার্চ সাইফুর রহমান তার দলবল নিয়ে ফরিদুলের সানোহাট বাজারের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করেন। এ সময় ফরিদুলের স্ত্রীর শ্লীলতাহানির চেষ্টাও করে সন্ত্রাসীরা। বাড়ির লোকজনের আত্মচিৎকারে স্থানীয় লোকজন সাইফুর রহমান এবং সহযোগী কুদ্দুসকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। সেই সময় সাইফুরের একটি পা ভেঙ্গে যায়। তারই জের ধরে এই ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করছেন এলাকাবাসী।

ভূরুঙ্গামারী থানার ওসি তদন্ত জাহিদুল ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন। ঘটনায় জড়িত চারজনকে আটক করা হয়েছে।

আরও পড়ুন : এমসি কলেজে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ : ৫ দিনের রিমান্ডে সাইফুর-অর্জুন

ভয়েস টিভি/এএন 
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/51606
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ