Printed on Tue May 11 2021 7:10:45 AM

হুইলচেয়ারে মমতা : দ্রুত সুস্থ হওয়ায় সন্দেহ বিজেপির

নিজস্ব প্রতিবেদক
পশ্চিমবঙ্গ
হুইলচেয়ারে
হুইলচেয়ারে
নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর সময় ‘হামলায়’ আহত ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হুইলচেয়ারে করে ১৪ মার্চ রোববার রাজপথে ফিরেছেন।  তবে দিন চারেক পার হতে না হতেই  তিনি সুস্থ হওয়ায় সন্দেহ জানিয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)।

এর আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পায়ে আঘাত কোনো ‘ষড়যন্ত্রমূলক’ ঘটনা নয় বলে দাবি করেছিল ভারতের নির্বাচন কমিশন। আর এরপরই তৃণমূল কংগ্রেসের শীর্ষ এই নেত্রীর আহত হওয়া এবং চিকিৎসার রিপোর্ট নিয়ে ফের নির্বাচন কমিশনে চিঠি দিয়েছে বিজেপি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চিকিৎসা সংক্রান্ত নথিপত্র এবং তথ্য প্রকাশের দাবি করা হয়েছে চিঠিতে।

কমিশনে দেওয়া চিঠিতে বলা হয়েছে, পায়ে চোট পাওয়ার পরে মমতার কী চিকিৎসা হয়েছে তা প্রকাশ্যে এনে ‘রাজ্যবাসীকে সত্য জানানো হোক’।

এক বিজেপি নেতা সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, কী এমন চিকিৎসা হলো যে- ২৪ ঘণ্টার মধ্যে প্লাস্টার খুলে ফেলা হলো, ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে মুখ্যমন্ত্রী বাড়ি ফিরলেন এবং ৭২ ঘণ্টার মধ্যে নির্বাচনী প্রচারে বেরিয়ে পড়লেন তা রাজ্যবাসীর জানা উচিত।

বিজেপির ওই নেতার দাবি, নন্দীগ্রামে নির্বাচনী প্রচারণার সময় হামলায় আহত হওয়ার পর কোন অত্যাধুনিক চিকিৎসার মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রী এতো তাড়াতাড়ি সুস্থ হলেন সেটাও জানা দরকার। এসএসকেএম-এ চিকিৎসার রিপোর্ট প্রকাশ্যে আনা হোক।

বিজেপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চিকিৎসার জন্য মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছিল। কিন্তু পর্যাপ্ত তথ্য বা মেডিকেল বুলেটিন প্রকাশ করা হয়নি। মমতার এক্সরে রিপোর্টও প্রকাশ করা হয়নি। চিকিৎসা সংক্রান্ত নথি প্রকাশ না করে রাজ্যের মানুষকে অন্ধকারে রাখা হয়েছে বলেও দাবি করেছে দলটি।

গত বুধবার নন্দীগ্রামে মনোনয়ন জমা দেওয়ার পরে কেন্দ্র সফরের সময় অজ্ঞাত চার-পাঁচ ব্যক্তির ধাক্কায় বাঁ পায়ে গুরুতর আঘাত পেয়েছিলেন তিনি। আঘাত লাগে শরীরের আরও কয়েকটি জায়গায়। দ্রুত সেখান থেকে তাকে নেওয়া হয় কলকাতায়।

পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর চিকিৎসকরা আঘাত লাগা পায়ে প্রাথমিক প্লাস্টার করেছিলেন। সেই প্লাস্টার খুলে শুক্রবার ফের পরীক্ষার পরে আরও একটি প্লাস্টার করা হয়। দেওয়া হয় বিশেষ ধরনের ‘প্লাস্টার শ্যু’।

হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে শুক্রবার বাড়ি ফিরে তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী বলেন, ‘আঘাত, যন্ত্রণা সবকিছুর পরেও বলছি, মানুষের কাছে গিয়ে আমাকে দাঁড়াতেই হবে। কারণ নির্বাচন একটি বড় রাজনৈতিক সংগ্রাম। সেখানে মানুষই আমার শক্তি। তাই নিজের কষ্টের থেকে মানুষের সামনে পৌঁছানো আমার কাছে বেশি জরুরি।’

ভয়েস টিভি/ডি
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/38674
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ