Printed on Thu Jan 27 2022 12:17:59 AM

উপমহাদেশের প্রথম রঙিন চলচ্চিত্রের অভিনেত্রী রোজী

নিজস্ব প্রতিবেদক
বিনোদনভিডিও সংবাদ
রোজী
রোজী
সোনালী যুগের মেধাবী অভিনেত্রী রোজী। ষাট ও সত্তর দশকের বহু জনপ্রিয় সিনেমায় অভিনয় করা এই অভিনেত্রী উপমহাদেশের প্রথম রঙিন চলচ্চিত্র ‘সঙ্গম’ এ অভিনয় করেছেন। ১৯৬৪ সালে সিনেমাটি পরিচালনা করেন বিখ্যাত পরিচালক জহির রায়হান। বাংলা চলচ্চিত্রের বর্ণাঢ্য যুগে আব্দুল জব্বার খানের ‘জোয়ার এলো’ সিনেমায় অভিনয়জীবন শুরু করেন রোজী।

প্রথম জীবনে পরিচালক এম এ সামাদকে বিয়ে করে তার নাম হয় রোজী সামাদ। আশির দশকের সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করা মালেক আফসারীকে ভালোবেসে বিয়ে করে হন রোজী আফসারী। রোজী আফসারীর চেয়ে ২০ বছরের ছোট ছিলেন মালেক আফসারী। তবে চলচ্চিত্রে রোজী সামাদ ও রোজী আফসারী দুটো নামেই সুপরিচিত তিনি।

মালেক আফসারী রোজী আফসারীর মৃত্যুর দিনের সময়ের স্মৃতিচারণ করে বলেন, চকলেট খেতে খুব ভালোবাসতেন রোজী। মৃত্যুর কিছুক্ষন আগেও চকলেট খাওয়ার আবদার করেছিলেন তিনি

১৯৪৬ সালের ২৩ এপ্রিল লক্ষ্মীপুর জেলায় জন্মগ্রহণ করেন রোজী। তার পুরো নাম শামীমা আক্তার রোজী। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে কিংবদন্তি অভিনয়শিল্পী রোজী আফসারী দেশীয় চলচ্চিত্রের মানসম্মত অভিনয়শিল্পের অধ্যায় গড়তে ছিলেন অগ্রগামী। তিনি অভিনয়ের পাশাপাশি নৃত্য পরিচালনাও করেছেন। কবিতা সামাদ তার একমাত্র মেয়ে ।

রোজী শৈশব, কৈশোর থেকে থিয়েটারের সাথে যুক্ত ছিলেন। উপমহাদেশের বিখ্যাত পরিচালক ঋত্বিক কুমার ঘটকের ‘তিতাস একটি নদীর নাম’ সিনেমায় অভিনয় করে আন্তর্জাতিক খ্যাতি পেয়েছেন রোজী। সত্যজিৎ রায়ের মতো বিশ্বখ্যাত চলচ্চিত্রকারের সঙ্গেও ছিলো তার সখ্যতা।

চার দশকের ক্যারিয়ারে প্রায় সাড়ে তিনশ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। নারায়ণ ঘোষ মিতার ‘আলোর মিছিল’ সিনেমার মধ্য দিয়ে খ্যাতির শীর্ষে আরোহন করেন তিনি। দাপুটে নায়িকা হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করা রোজী মা, বড় ভাবী, সংসারের বড় বৌ, বিধবা, মহিয়সী নারী চরিত্র, বাদশাহ মহলের নির্বাসিত বেগম চরিত্রেও ছিলেন অনন্য।

এইতো জীবন, রাজা সন্যাসী, একটুকু আশা, প্রতিকার, বেদের মেয়ে, নীল আকাশের নিচে, কাঁচ কাটা হীরে, রংবাজ, দীপ নেভে নাই, পায়ে চলার পথ, আবার তোরা মানুষ হ, আলোর মিছিল, লাঠিয়াল, পায়ে চলার পথ, অশিক্ষিত, গায়ের বধূ, এই ঘর এই সংসার, বীর সৈনিক, পরমপ্রিয়সহ বহু সিনেমায় অভিনয় করেছেন রোজী আফসারী। তাঁর সর্বশেষ ছবি পরমপ্রিয় ২০০৫ সালে মুক্তি পায়।

তিনি বেশকিছু উর্দু সিনেমায়ও অভিনয় করেন। বন্ধন, সঙ্গম, জাগো হুয়া সাভেরা, পুনাম কি রাত উল্লেখযোগ্য রোজী অভিনীত উর্দু সিনেমা।

১৯৭৪ সালে আলোর মিছিল সিনেমায় অভিনয়ের জন্য বাচসাস পুরস্কার অর্জন করেন রোজী আফসারী। ১৯৭৫ সালে ‘লাঠিয়াল’ সিনেমায় অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন। এছাড়া দেশি-বিদেশি প্রায় ৫০টি পুরস্কারে ভূষিত হয়েছিলেন তিনি। রোজী আফসারীকে নিয়ে ২০১৯ সালে গুগল কর্তৃপক্ষ তাঁর জন্মদিনে ডুডল করে।

বাংলাদেশের প্রথম মহিলা পরিচালক হিসেবে রোজী ১৯৮৬ সালে ‘আশা নিরাশা’ নামের একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন। সোনালী যুগের সুমিষ্ট হাসির মেধাবী এই অভিনেত্রী ২০১৪ সালের ৯ মার্চ মাত্র ৫৭ বছর বয়সে পাড়ি জমান পরপারে।

আরও পড়ুন : স্বামী-সন্তানের সঙ্গে রঙিন সানি লিওন
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/61439
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2022 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ