Printed on Sat May 28 2022 8:06:16 PM

পাশে থাকার ঘোষণা দিয়েও কেউ নেই, একা লড়ছে ইউক্রেন (ভিডিও)

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
বিশ্বভিডিও সংবাদ
ইউক্রেন
ইউক্রেন
ইউক্রেন নিজেদের স্বার্বভৌমত্বের কথা বিবেচনায় নিয়ে ন্যাটো জোটে যোগ দেয়ার ঘোষণার পর থেকেই মাথা ব্যথা শুরু রাশিয়ার। এরপরই গেল কয়েক সপ্তাহ ধরে ইউক্রেন সীমান্তে সেনা সমাবেশ ঘটায় রাশিয়া।

পৃথিবীর সব শক্তিধর দেশের হুমকি উপেক্ষা করে গেল ২৪ ফেব্রুয়ারি সকালে ইউক্রেনে সেনা অভিযান শুরু করে রাশিয়া। এতে এখন পর্যন্ত বহু হতাহতের খবর পাওয়া যাচ্ছে।

তবে রাশিয়ার হামলার আগে যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন ইউরোপীয় দেশ ইউক্রেনের পাশে থেকে রাশিয়াকে মোকাবিলা করার ঘোষণা দিলেও হামলার পর মৌখিক বিবৃতি ও নিষেধাজ্ঞা ছাড়া কেউ সামরিক সহায়তা নিয়ে এগিয়ে আসেনি।

বরং সমরাস্ত্রে সুসজ্জিত রুশ সৈন্যদের বিরুদ্ধে একাই লড়াই করছে ইউক্রেন। এই আক্ষেপ দেশটির প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কিরও।

সবাই সহযোগিতার আশ্বাস দিলেও শেষমেষ কেন একা লড়াই করতে হচ্ছে ইউক্রেনকে, এ নিয়েই আজকের প্রতিবেদন।

ইউক্রেন যদি সামরিক জোট ন্যাটোতে যোগ দেয় সেক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি লাভ মূলত যুক্তরাষ্ট্রেরই। কিন্তু হামলা শুরুর পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট বাইডেন নিন্দা এবং রাশিয়ার ওপর অর্থনৈতিক অবরোধের ঘোষণা ছাড়া সামরিক সহায়তা দেবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন।

মূলত বিশ্বের অন্যতম পরাশক্তি রাশিয়ার সঙ্গে কোনো দেশই সরাসরি যুদ্ধে লিপ্ত হতে চাচ্ছে না। এমনকি যুদ্ধ শুরুর ঠিক আগে কৃষ্ণ সাগরে অবস্থান করা ন্যাটোর সাবমেরিনটিও সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

বস্তুত একা হয়ে পড়েছে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কি এবং দেশটির জনগণ।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, রাশিয়ার আগ্রাসন শুরুর পর বড় দেশগুলো দূর থেকে দেখছে। এখন একা ইউক্রেনকেই রুশ বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াই করতে হচ্ছে।

কোনো দেশ ইউক্রেনে সেনা পাঠায়নি।প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি আরো বলেন, ‘আমরা একাই আমাদের দেশ রক্ষায় লড়াই চালিয়ে যাচ্ছি। আমাদের পাশে দাঁড়িয়ে কে যুদ্ধ করতে প্রস্তুত?

আমি কাউকেই দেখি না। ন্যাটোর সদস্য পদ পাওয়ার নিশ্চয়তা ইউক্রেনকে দিতে কে প্রস্তুত? সবাই ভয় পেয়েছে।

জেলেনস্কি বলেন, ইউক্রেন এখন পর্যন্ত কারো কাছ থেকে কোনো সহায়তা পায়নি। ইউক্রেনের বাহিনীর প্রশংসা করে জেলেনস্কি বলেন, ইউক্রেনের সেনারা অসাধারণ কাজ করছে।

ইউক্রেন জুড়ে রুশ বাহিনীর বিরুদ্ধে দারুণ দক্ষতা দেখিয়েছে তারা।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি ইউক্রেন থেকে তাকে সরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে ওয়াশিংটনের প্রস্তাবকে প্রত্যাখ্যান করে বলেন, 'লড়াই এখানে। আমাকে উদ্ধারের প্রয়োজন নেই, আমার গোলাবারুদ প্রয়োজন।

এদিকে ইউক্রেনে হামলার প্রতিবাদে পৃথিবীর দেশে দেশে চলছে বিক্ষোভ। এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে যুদ্ধ বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্স, জার্মানীসহ প্রায় সব দেশই।

রাশিয়ার ওপর অর্থনৈতিক অবরোধ ছাড়াও বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

এছাড়াও রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিন ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভের ওপরও সরাসরি নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। এর কয়েক ঘণ্টা আগে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) পুতিন ও লাভরভের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দেয়।
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/67932
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2022 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ