Printed on Sun Oct 24 2021 11:46:48 AM

কাল খুলছে রপ্তানিমুখী কারখানা, কাজে যোগ দেয়া বাধ্যতামূলক নয়

নিজস্ব প্রতিবেদক
জাতীয়
কাজে
কাজে
কঠোর বিধি-নিষেধের সময়সীমা শেষ হওয়ার আগেই রপ্তানিমুখী শিল্প-কারখানা খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়েছে সরকার। সরকারি ছুটির দিনেই এসংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। কঠোর বিধি-নিষেধ শেষ হবে আগামী ৫ আগস্ট। তবে এখনই কাজে যোগ দেয়া বাধ্যতামূলক নয় বলে প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়েছে।

তবে হঠাৎ সরকারের এই সিদ্ধান্তে ঈদের সময় ঢাকা থেকে গ্রামের বাড়িতে যাওয়া শ্রমিকদের আবার ঢাকামুখী ঢল নামার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। কারণ আজ শনিবার এক দিনের মধ্যে তাদের ঢাকায় আসতে হবে। পরিবহন বন্ধ থাকায় তারা কিভাবে আসবেন, সেই নির্দেশনা নেই।

এমন পরিস্থিতিতে সরকারের এই সিদ্ধান্তে রীতিমতো বিস্ময় প্রকাশ করেছেন করোনা মোকাবিলায় সরকার গঠিত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সদস্যরা। এমনকি কেউ কেউ ক্ষোভ প্রকাশ করে আজ-কালের মধ্যেই ওই কমিটি থেকে পদত্যাগ করতে পারেন বলে আভাস দিয়েছেন।

তবে এ বিষয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, ‘শ্রমিকদের মধ্যে যারা ঈদের পরের দিন এবং এই কয়েক দিনে বিচ্ছিন্নভাবে ঢাকায় এসেছেন বা এরই মধ্যে কারখানার আশপাশে রয়েছেন, শুধু তাদের নিয়েই কারখানা চালু করবেন গার্মেন্ট মালিকরা। আর যারা বাড়িতে অবস্থান করছেন তারা ৫ আগস্টের পর গাড়ি চলাচল শুরু হলে ঢাকায় আসবেন।’

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘গার্মেন্টস মালিকরা আমাদের কথা দিয়েছেন বাড়িতে অবস্থানরত শ্রমিকদের কারখানায় আসতে চাপ দিবেন না তারা। আমরা কঠোরভাবে বলেছি, এই সময়ের মধ্যে কোনো বাস চলবে না। যারা রয়েছেন তাদের নিয়েই স্বল্প পরিসরে কাজ করতে হবে। শিল্প-কলকারখানার মালিক এবং তাদের সংগঠনগুলো এই শর্ত মেনে নিয়েছে।’

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এ বি এম খুরশীদ আলম জানান দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পরিস্থিতি উদ্বেগজনক অবস্থায় থাকায় চলমান কঠোর বিধি-নিষেধ আরো ১০ দিন অব্যাহত রাখার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির একজন জ্যেষ্ঠ সদস্য বলেন, ‘আমরা কমিটিতে থেকে লাভ কী? যে পরামর্শ দিই সেটা তো একবারও পুরোপুরি বাস্তবায়ন করা হলো না। মহলবিশেষ সরকারকে চাপের মুখে ফেলে মানুষকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিচ্ছে। বিশৃঙ্খলার মুখে ফেলছে। এর দায় গিয়ে তো সরকারের ওপরেই পড়ছে। সরকার কেন ৫ আগস্টের আগেই হুট করে শিল্প-কারখানা খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত দিল, তা বোধগম্য নয়।’

সার্বিকভাবে লকডাউন পরিস্থিতি মূল্যায়নে গত রোববার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের নেতৃত্বে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের একটি বৈঠক হয়। সেই বৈঠকেও ৫ আগস্ট পর্যন্ত লকডাউন চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত পুনর্ব্যক্ত করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

করোনা মোকাবিলায় সরকার গঠিত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ বলেন, ‘হঠাৎ এই সিদ্ধান্ত দেয়ার আগে অন্ততপক্ষে আমাদের সঙ্গে সরকারের আলাপ করা উচিত ছিল, কিন্তু সেটা হয়নি। আমাদের জায়গা থেকে সরকারকে পরামর্শ দেওয়া ছাড়া আর কী-ই বা করতে পারি।’

ভয়েস টিভি/এসএফ
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/49838
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ