Printed on Mon Oct 18 2021 5:47:04 PM

কেন্দ্রীয় নেতার সামনেই ছাত্রলীগের হামলায় আওয়ামী লীগের ১০ নেতা আহত

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
রাজনীতিসারাদেশ
কেন্দ্রীয়
কেন্দ্রীয়
কুড়িগ্রাম জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় রংপুর বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন শফিক’কে অভ্যার্থনা জানানোকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ১১ অক্টোবর সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে কুড়িগ্রাম সার্কিট হাউজ প্রাঙ্গণে এই হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় জেলা আওয়ামীগের অত্যন্ত ১০জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

জেলা আওয়ামী লীগ ও স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, কুড়িগ্রাম সার্কিট হাউজে জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় অংশ নিতে সাখাওয়াত হোসেন শফিককে অভ্যর্থনা জানানোর আয়োজন করা হয়। এ সময় কুড়িগ্রাম জেলা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এতে জেলা আওয়ামী লীগের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হয়েছে। এসময় সার্কিট হাউজের বেশ কয়েকটি জানালার গ্লাসও ভাঙচুর করা হয়। পরে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও পুলিশ মোতায়েন করা রয়েছে।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমান উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু বলেন, সার্কিট হাউসে আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সাংগঠনিক সম্পাদককের উপস্থিতিতে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাজু আহমেদ এবং সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনের প্রত্যক্ষ নেতৃত্বে জেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ওপর আতর্কিত হামলা চালায়। এতে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ.ন.ম ওবায়দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান সাজু, যুব মহিলা লীগ নেত্রী আফসানা মিমিসহ প্রায় ১০জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। এসময় ছাত্রলীগের সদস্যরা সার্কিট হাউজেও ভাঙচুর চালিয়েছে।

জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাজু আহমেদ বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা এবং শফিক ভাইয়ের নামে শ্লোগান দেয়া হয়। এসময় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের নামে শ্লোগান না দেয়া যুবলীগের সাধারণ কর্মী ১১/১২টি মামলার আসামি আনোয়ার, তুহিন, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আল আমিন সরকার লিংকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফাহিমসহ বেশ কয়েকজন সন্ত্রাসী উত্তেজিত হয়ে আমাকে লাঞ্ছিত করে পাঞ্জাবি ছিড়ে দেয়। এসময় জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি হয়।

জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন বলেন, কুড়িগ্রাম জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদকের মাঝে কোন গ্রুপিং নেই। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমান উদ্দিন আহমেদ মঞ্জুর ছত্রছায়ায় জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আল আমিন সরকার লিংকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফাহিমের নেতৃত্বে আজকের ঘটনাটি পূর্ব পরিকল্পিত এবং সাজানো। তারা অতর্কিতভাবে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতির ওপর হামলা চালায়। এসময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা উত্তেজিত হয়ে পড়ে এবং ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটে।

কুড়িগ্রাম সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খান মো. শাহরিয়ার বলেন, সার্কিট হাউজে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতার অভ্যার্থনাকে কেন্দ্র করে ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটেছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

ভয়েস টিভি/এসএফ
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/55581
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ