Printed on Wed May 25 2022 3:54:22 AM

সব ধরনের ক্রিকেট থেকে সাড়ে ৩ বছর নিষিদ্ধ টেইলর

স্পোর্টস ডেস্ক
খেলার খবর
ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ টেইলর
ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ টেইলর
জিম্বাবুয়ের সাবেক অধিনায়ক ব্র্যান্ডন টেইলরকে আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে ক্রিকেটের সকল প্রতিযোগিতা থেকে সাড়ে তিন বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছে আইসিসি।

শুক্রবার আইসিসির এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয় জিম্বাবুয়ের এই ক্রিকেটার আইসিসি’র আচরণবিধির মোট চারটি ধারা লঙ্ঘন করেছেন।

টেইলর তদন্তে দোষী প্রমাণিত হয়েছেন। তিনি অভিযোগ স্বীকার করে শাস্তি মেনে নিয়েছেন।

এক টুইটে টেইলর লিখেন, ‘‘গত দু’বছর ধরে একটা বোঝা বয়ে বেড়াচ্ছি। পরিস্থিতি আমাকে অন্ধকারের দিকে ঠেলে নিয়ে গেছে।

বিষয়টা বন্ধু-বান্ধব এবং পরিবারকে জানাই এবং তাদের ভালবাসা ও সমর্থনে আজ সবাইকে ঘটনাটা জানাতে চাই।’’

ঘটনার বিস্তারিত বিবরণ দিয়ে টেইলর লিখেন, ২০১৯-এর অক্টোবরের শেষের দিকে ভারতের এক ব্যবসায়ী আমাকে স্পনসরশিপ এবং জিম্বাবুয়েতে চালু হতে চলা একটি টি-টোয়েন্টি প্রতিযোগিতার ব্যাপারে কথা বলতে সে দেশে যেতে বলেন।

আমাকে মোটা টাকার প্রস্তাব দেওয়া হয়। একটু ভয়ে ছিলাম।

কিন্তু গত ছ’মাস ধরে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট আমাদের একটাও টাকা না দেওয়ায় এটাও মাথায় আসছিল যে, আদৌ জিম্বাবুয়ে আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খেলতে পারবে কি না।

এরপর তিনি লিখেন, আমি ভারতে যাই। ওদের সঙ্গে আলোচনা হয় এবং ফিরে আসার আগে শেষ রাতে হোটেলে আমার জন্য ওই ব্যবসায়ী এবং তার সহকর্মীরা একটি নৈশভোজের আয়োজন করেন।

মদ্যপানের পর তারা সরাসরি আমাকে কোকেন নেওয়ার প্রস্তাব দেন এবং নিজেরাও কোকেন নিতে থাকেন। আমি বোকার মতো কোকেন নিয়ে ফেলেছিলাম।

অন্তত লক্ষবার এই ঘটনাটা নিয়ে ভেবেছি এবং কীভাবে আমার সঙ্গে প্রতারণা করা হয়েছে সেটা বুঝতে পেরেছি।

টেইলরের দাবি ছিল, তার কোকেন নেওয়ার ছবি তুলে রাখা হয় এবং ব্ল্যাকমেইল করে ম্যাচ গড়াপেটায় যুক্ত হওয়ার জন্য চাপ দেওয়া হয়।

তবে টেইলর এটাও জানিয়েছিলেন, তিনি কোনো দিন ম্যাচ গড়াপেটা করেননি এবং ঘটনার কিছু দিন পরেই আইসিসিকে গোটা ব্যাপারটি জানিয়েছিলেন।

টেইলরের এই দাবি ধোপে টেকেনি।

দেরি করে আইসিসিকে জানানোর অপরাধে তাকে নির্বাসনের শাস্তি দিয়েছে সংস্থাটি।

এদিকে টেলর বলেন, আমি প্রতারক নই। ক্রিকেট ভালবাসি।

তাই আইসিসিকে ঘটনার কথা জানানোর পর আমি বহু সাক্ষাৎকার দিয়েছি এবং বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছি।

কারণ আমি সৎ এবং স্বচ্ছ ছিলাম এবং ওদের তদন্তে সব রকম সাহায্য করতে তৈরি ছিলাম।
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/64949
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2022 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ