Printed on Wed May 25 2022 4:27:01 AM

পৃথিবীতে চলচ্চিত্রের যাত্রা যেভাবে

বিনোদন ডেস্ক
বিনোদনভিডিও সংবাদ
চলচ্চিত্রের যাত্রা যেভাবে
চলচ্চিত্রের যাত্রা যেভাবে
১৮৯৫ সালের ২৮ ডিসেম্বর। বিশ্ব চলচ্চিত্রের এক যুগান্তকারী অধ্যায়ের সূচনার দিন। এদিনে ফ্রান্সের প্যারিস শহরের গ্র্যান্ড ক্যাফেতে প্রদর্শিত হয় বিশ্বের প্রথম সিনেমা। আর এই কাজের পেছনে রয়েছে রাইড ব্রাদার্সের মতো দুই ভাই।

যারা লুমিয়ের ব্রাদার্স নামে পরিচিত। প্যারিসের দুই ভাই লুই লুমিয়ের ও অগাস্ত লুমিয়ের প্রথম এই প্রদর্শনী করে বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দেন। হাঁটি হাঁটি পা পা করে চলচ্চিত্রের শিল্পের বয়স আজ ১২৫।

এর আগে চলচ্চিত্র নিয়ে অনেক এক্সপেরিমেন্ট হয়েছে। মুভিং ক্যামেরা নিয়ে গবেষণা হয়েছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সফলতা এসেছে লুমিয়ের ভাইদের হাত ধরে। মূলত এই চলচ্চিত্রযাত্রার স্বপ্ন বোনা শুরু করেছিলেন লুমিয়ের ভ্রাতৃদ্বয়ের পিতা আন্তোনি লুমিয়ের।

১৮৯০ সালে মার্কিন উদ্ভাবক টমাস আলভা এডিসন ও তাঁর সহযোগী উইলিয়াম ডিকসন প্রথম চলচ্চিত্র ধারণ করার মতো ক্যামেরা তৈরি করেন। তারা যার নাম দেন কিনেটোগ্রাফ। পরের বছর তাঁরা তৈরি করেন কিনেটোস্কোপ।

কিনেটোস্কোপ দেখে মুগ্ধ হয়ে আন্তোনি তার ফটোগ্রাফিক প্লেটের ব্যবসা নিয়ে ব্যস্ত দুই ছেলেকে এমন একটি যন্ত্র তৈরির বুদ্ধি দেন। বাবার উৎসাহে ফ্রান্সের লিঁও নিবাসী দুই ভাই এমন এক যন্ত্র তৈরিতে লেগে পড়েন।

১৮৯৫ সালের মার্চ মাসে তারা একটি ক্যামেরা প্রজেক্টর তৈরি করে ফেলেন। তারা এর নাম দেন সিনেমাটোগ্রাফ। আবিষ্কারের পর তারা প্রায় নয় মাস যন্ত্রটি দিয়ে প্রথম পরীক্ষা চালান।

এরপর প্রথম নিজেদের কারখানার শ্রমিকদের ছবি তুলে তৈরি করেন সিনেমা।

সে সময় লুমিয়ের ভ্রাতৃদ্বয় ছোট ছোট দশটি ১ মিনিটের ছবি নিয়ে বাণিজ্যিক প্রদর্শনী করেন। বিস্ময়ে হতবাক হয়ে সে সময় চলচ্চিত্র দেখেন প্যারিসের মানুষ। লুই লুমিয়ের নির্মিত ও প্রদর্শিত প্রথম ছবি ছিলো ‘ওয়ার্কার্স লিভিং দ্য লুমিয়ের ফ্যাক্টরি’।

৩৫ মিলিমিটারে নির্মিত ১৭ মিটার দৈর্ঘ্যের এই চলচ্চিত্রটির ব্যাপ্তি ছিলো মাত্র ৪৬ সেকেন্ড। এক মিনিটেরও কম সময়ের এই সিনেমাতে দেখা যায়, লুমিয়েরের কারখানা থেকে শ্রমিকরা বের হচ্ছেন, যাদের অধিকাংশই ছিলেন নারী।

লুমিয়ের ভাইদের অনুসরণ করে দেশে দেশে তখন চলচ্চিত্র নির্মাণ ও প্রদর্শনের হিড়িক পড়ে যায়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এক্ষেত্রে এগিয়ে থাকে। মার্কিনি নির্মাতা এডউইন পোর্টার প্রথম ১৯০২ সালে কাহিনীচিত্র ‘দ্যা লাইফ অব অ্যান আমেরিকান ফায়ারম্যান’ নির্মাণ করেন। চলচ্চিত্র সম্পাদনার সূচনাও করেন তিনি।

পোর্টার ১৯০৩ সালে নির্মাণ করেন ‘দ্যা গ্রেট ট্রেন রবারি’। যাকে বলা হয় পৃথিবীর সফল প্রথম কাহিনীচিত্র। সে সময় আরেকজন মার্কিন চলচ্চিত্র নির্মাতা ডেভিড ওয়ার্ক গ্রিফিথ চলচ্চিত্রে যেন বিপ্লব ঘটান। তিনি তাঁর চলচ্চিত্রে বিশাল সেট, বিপুল শিল্পী-কলাকুশলী দ্বারা ইতিহাসের সন্নিবেশ ঘটান তাঁর চলচ্চিত্রে।

তিনি নির্মাণ করেন ‘বার্থ অব আ নেশন’, ইনটলারেন্সসহ বেশ কিছু সিনেমা। ১৯০৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রে গড়ে ওঠে চলচ্চিত্র কোম্পানী। ১৯১১ সালে শুরু হয় ‘হলিউড’ এর যাত্রা।

ভারতে প্রথম চলচ্চিত্র পদর্শন হয় বোম্বের ওয়াটসন হোটেলে ১৮৯৬ সালের ৭ জুলাই। লুমিয়ের ভাইদের প্রতিনিধি মরিস সেসতিয়ার অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার পথে এই প্রদর্শনী করেন।

১৮৯৮ সালে প্রথম বাংলায় চলচ্চিত্র নির্মাণ ও প্রদর্শন করেন ঢাকার মানিকগঞ্জের বকজুরি গ্রামের ছেলে হীরালাল সেন। তিনি প্রথমে দ্যা রয়েল বায়োস্কোপ কোম্পাণী গঠন করেন।

তিনি প্রায় একশোর উপরে চলচ্চিত্র, তথ্যচিত্র, বিজ্ঞাপন চিত্র নির্মাণ করেছেন। তিনি ছিলেন প্রথম বাঙালি চলচ্চিত্র নির্মাতা যিনি প্রথম ভারতীয় উপমহাদেশে চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন।
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/64014
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2022 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ