Printed on Thu Oct 21 2021 12:28:10 PM

চীনের মহা প্রাচীরের আরেক নাম পৃথিবীর সবচেয়ে দীর্ঘ কবরস্থান!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
বিশ্বভ্রমণভিডিও সংবাদ
চীনের মহা প্রাচীরের
চীনের মহা প্রাচীরের
পৃথিবীর সপ্তাশ্চর্যের মধ্যে একটি হলো চীনের মহা প্রাচীর। কিন্তু চীনের মহা প্রাচীরের আরেক নাম সবচেয়ে দীর্ঘ কবরস্থান! বা The Longest Graveyard।

আকৃতির দিক থেকে পৃথিবীর চতুর্থ বৃহত্তম দেশ চীন । সময়ের পরিক্রমায় চীনের মহাপ্রাচীরের প্রতি পযটকদের আগ্রহের কোনই কমতি নেই । গড়ে দৈনিক ৭০ হাজার টুরিষ্ট এই গ্রেটওয়াল দেখতে আসে । দেশটির পুরো উত্তর সীমান্ত এই প্রাচীর দিয়ে ঘেরা। ঐতিহাসিক এই স্থাপনা Great Wall Of China প্রচীরের শুরু দেশটির সাংহাই থেকে এবং শেষ হয়েছে লোপনুর নামক স্থানে।

কথিত আছে চীনের মহাপ্রাচীর ওপর দিয়ে একসঙ্গে ১২ জোড়া ঘোড়া চলতে পারে। সেই সাথে চাঁদ থেকেও নাকি প্রাচীর দেখা যায়। প্রাচীরটি কোথাও পাহাড়, কোথাও সমতল, কোথাও গেছে মরুভূমির ওপর দিয়ে তৈরী করা ।

খ্রিষ্টপূর্ব সপ্তম শতাব্দীতে, মানে আজ থেকে প্রায় ২ হাজার ৮০০ বছর আগে এই মহাপ্রাচীর নির্মাণের কাজ শুরু হয়। প্রতিবেশি মাঞ্চুরিয়া আর মঙ্গোলিয়ার যাযাবর দস্যুদের হাত থেকে চীনকে রক্ষা করার জন্য নির্মাণ করা হয়েছিল চীনের মহাপ্রাচীর ।

চীনের ৯টি প্রদেশব্যাপী বিস্তৃত এই মহাপ্রাচীর চীনের ৬টি রাজবংশ প্রায় আট লাখ শ্রমিকের কয়েক শত বছর লাগে নির্মাণ শেষ করতে। আজকের হিসেবে চীনের মহাপ্রাচীরের নির্মাণ ব্যয় ৬৩৫ বিলিয়ন চীনা ইউআন বা ৯৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

চীনের মহা প্রাচীরের মূল অংশের নির্মাণ কাজ শুরু করেছিলেন চীনের প্রথম সম্রাট কিং সি হুয়াং। সময়টা ছিলো খ্রিস্টপূর্ব ২০৮ সালের দিকে। সেই সময় চীন বিভিন্ন খণ্ড রাজ্যে বিভক্ত ছিল। ৭ম খ্রিস্ট পূর্বাব্দের প্রথম দিকে বিচ্ছিন্ন ভাবে অনেকগুলো প্রাচীর নির্মাণ করে বিভিন্ন রাজ্যের রাজারা। পরে সবগুলো প্রাচীর যুক্ত করে মহাপ্রাচীরে রূপ দেওয়া হয়।

ইট-পাথর দিয়ে তৈরি চীনের এ প্রাচীরের উচ্চতা ৪.৫৭ থেকে ৯.২ মিটার বা প্রায় ১৫ থেকে প্রায় ৩০ ফুট। চওড়ায় প্রায় ৯.৭৫ মিটার বা ৩২ ফুট। প্রাচীরটি বর্তমান যতোটুকু টিকে আছে তার বেশিরভাগ নির্মাণ করে চীনের মিং রাজবংশ।

ঐতিহাসিকদের মতে, তৎকালীন সময়ে চীনের প্রতি ৩ জন মানুষের ১ জনকে চীনের মহাপ্রাচীর নির্মাণের জন্য নিয়োজিত করেছিলেন রাজা। অন্য একটি হিসেবে চীনের ৪ লক্ষ মানুষ মৃত্যুবরণ করে প্রাচীর নির্মাণ করতে গিয়ে। এজন্য চীনের মহাপ্রাচীরকে পৃথিবীর সবচেয়ে দীর্ঘ কবরস্থান তথা The Longest Graveyard বলা হয়।

চীনের প্রাচীর এখন দেশটির মহা মুল্যবান সম্পদ । বিশ্বব্যাপী পর্যটকরা অধীর আগ্রহ নিয়ে চীনের মহাপ্রাচীর দেখতে যান। মহাপ্রাচীর দেখার টিকিট বিক্রি করে প্রতি বছর চীন সরকার ১৫.৫ বিলিয়ন ডলার আয় করে থাকে।

২০১২ সালে চীনের রাষ্ট্রীয় সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য দপ্তর মহাপ্রাচীরের দৈর্ঘ্য ২১ হাজার ১শ’৯৬ দশমিক ১৮ কিলোমিটার বলে দাবি করা হয়। ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্য হিসেবে চীনের মহাপ্রাচীর তালিকাভুক্ত হয় ১৯৮৭ সালে।

ভয়েসটিভি/এএস
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/54715
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ