Printed on Thu May 19 2022 1:08:10 AM

তিন দিন ধরে উত্তরের জনপদে হাড়কাঁপানো শীত, স্থবির জনজীবন

নিজস্ব প্রতিবেদক
জাতীয়
স্থবির
স্থবির
টানা তিন দিন ধরে উত্তরের জনপদ পঞ্চগড়ে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ চলছে। ৩০ জানুয়ারি রোববার সকালে তেঁতুলিয়া উপজেলায় দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৬ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এতে জনজীবন অনেকটা স্থবির হয়ে পড়েছে। রাতভর ঝিরঝির হিমেল বাতাস আর গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির মতো ঝরতে থাকা ঘন কুয়াশায় অনুভূত হচ্ছে হাড় কাঁপানো শীত।

‘কয়দিনের ঠান্ডায় হামার অবস্থা কাহিল, দেখেন না কুয়াশায় দশ হাতও দেখা যায় না, তারপরও কাজোত যাবার তানে (জন্য) বাইর হইচি, কাপড়-চোপর-চোখের ভ্রু সব কুয়াশায় ভিজে যাছে, ঠান্ডাতে হাত-পাওলা শিক লাগেছে।’ আজ সকাল সাড়ে আটটার দিকে পঞ্চগড় সদর উপজেলার হেলিপ্যাড এলাকায় পঞ্চগড়-বাংলাবান্ধা মহাসড়কে এভাবেই কথাগুলো বলছিলেন রাজমিস্ত্রিশ্রমিক হাসিবুল ইসলাম (৫২)।

এর আগে গতকাল শনিবার সকাল নয়টায় পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া ও কুড়িগ্রামের রাজারহাটে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত শুক্রবার সকাল নয়টায় তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৭ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ওই দিন সারা দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৬ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছিল কুড়িগ্রামের রাজারহাটে। তেঁতুলিয়ায় আজ সকালের তাপমাত্রা ৬ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। চলতি শীত মৌসুমে তেঁতুলিয়ায় এটাই সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। এই মৌসুমে এর আগে তেঁতুলিয়ার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নামেনি।

আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, চলতি শীত মৌসুমে মাঝেমধ্যে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে গেলেও গত শুক্রবার থেকে পঞ্চগড়ে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বইছে। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর থেকে বাড়তে থাকে উত্তরের হিমশীতল বাতাস। রাতভর হিমেল বাতাসে কাবু হয়ে পড়েন মানুষ। শৈত্যপ্রবাহ মৃদু থেকে নেমে আসে মাঝারিতে। কনকনে শীতে প্রায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে উত্তরের জনজীবন। শুক্রবার সকালে সূর্যের মুখ দেখা গেলেও দিনভর ঠান্ডা বাতাসে কমেনি শীতের তীব্রতা।

তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. রাসেল শাহ্ বলেন, তেঁতুলিয়ায় তিন দিন ধরে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। চলতি শীত মৌসুমের মধ্যে আজ সকালে সবচেয়ে বেশি ঘন কুয়াশা ছিল। বেলা ১১টার পর সূর্যের মুখ দেখা গেলেও হালকা মেঘ আর আকাশের উপরিভাগে ঘন কুয়াশা থাকায় রোদের তীব্রতা ছড়াতে পারছে না। হিমালয় থেকে বয়ে আসা ভারী শীতল বাতাস অব্যাহত থাকায় দিনেও শীত অনুভূত হচ্ছে। উত্তরের এই জনপদে মাঝারি ও মৃদু শৈত্যপ্রবাহ আরও দুই দিন থাকতে পারে।

পঞ্চগড় সদর উপজেলার বৈদ্যুতিক খুঁটি নির্মাণ কারখানায় শ্রমিকের কাজ করেন জাহেদুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘আমরা সারা রাত ডিউটি শেষে বাড়ি ফিরছি। রাতে তো ঠান্ডায় থাকাই যায় না। এখন সকালে বাড়ি ফেরার সময় কুয়াশায় ‍কিছু দেখা যায় না। শীত বাড়লে সবচেয়ে বেশি কষ্ট আমাদেরই হয়।’

ভয়েস টিভি/এসএফ
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/65102
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2022 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ