Printed on Thu Dec 02 2021 10:41:14 PM

তৃতীয় স্ত্রীর সহায়তায় চতুর্থ স্ত্রীকে খুন, আশ্রয় দেয় ২য় স্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
জাতীয়
তৃতীয়
তৃতীয়
চট্টগ্রাম নগরীতে নিজ বাসা থেকে ‍তরুণীর লাশ উদ্ধারের ঘটনায় তার স্বামী ও সতীনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, স্বামী চট্টগ্রামে তার চতুর্থ স্ত্রীকে খুন করে বাগেরহাটে দ্বিতীয় স্ত্রীর কাছে আশ্রয় নিয়েছিল। প্রায় ১৬ মাস ধরে আত্মগোপনে থাকার পর তাকে গ্রেফতার করা হয়। এদিকে চট্টগ্রামে অবস্থানকারী তার তৃতীয় স্ত্রীকেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

৮ নভেম্বর বাগেরহাটে মোংলায় অভিযান চালিয়ে স্বামী সোহাইল আহমেদ (৩৮) এবং তৃতীয় স্ত্রী নাহিদাকে (২৮) চট্টগ্রাম নগরীর পতেঙ্গা এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

২০২০ সালের ২১ জুলাই চট্টগ্রাম নগরীর হালিশহর রহমানবাগ আবাসিক এলাকার একটি বাসা থেকে আনুমানিক ২৫ বছর বয়সী তরুণীর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। মরদেহ উদ্ধার করলেও পুলিশ সেসময় তার পরিচয় জানতে পারেনি। তদন্তে নেমে ১৬ মাসের মাথায় পুলিশ ওই তরুণীর পরিচয় শনাক্ত করে। তার নাম লাকী আক্তার পিংকী।

নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (পশ্চিম) আব্দুল ওয়ারিশ জানান, গ্রেফতার লাকী সোহাইলের চতুর্থ স্ত্রী। এর আগে সে আরও তিনটি বিয়ে করে। প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে তার ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। দ্বিতীয় স্ত্রীকে বাগেরহাট, তৃতীয় স্ত্রী নাহিদাকে নগরীর পতেঙ্গায় এবং চতুর্থ স্ত্রী লাকীকে হালিশহরে বাসা ভাড়া করে আলাদাভাবে রেখেছিলেন। লাকী, নাহিদা এবং সোহাইল চট্টগ্রামে একই পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন। ২০১৬ সালে সহকর্মী নাহিদাকে এবং ২০২০ সালে লাকীকে বিয়ে করে সে।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত ‍উপ-কমিশনার (পশ্চিম) পংকজ দত্ত বলেন, ‘সোহাইল ধূর্ত প্রকৃতির লোক। রেজাউল করিম নামে অন্য একজনের জাতীয় পরিচয়পত্র জমা দিয়ে সে লাকীর জন্য বাসা ভাড়া নিয়েছিল। এজন্য লাকী এবং তার জন্য বাসা ভাড়া নেওয়া ব্যক্তির তথ্য পেতে আমাদের সময় লেগেছে। সোহায়েল আত্মগোপনে গিয়ে মোবাইলের কমপক্ষে পাঁচটি সিম পরিবর্তন করে। তবে প্রথম ব্যবহার করা মোবাইল সিমের সূত্র ধরেই তার সন্ধান মিলেছে।’

ভয়েস টিভি/এসএফ

যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/57987
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ