Printed on Mon Oct 18 2021 5:35:11 PM

ধর্মগুরু রাম রহিম কারাগারে কেমন আছেন?

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
বিশ্বভিডিও সংবাদ
ধর্মগুরু
ধর্মগুরু
কারাগারে বন্দি অবস্থায় কেমন আছেন ধর্ষণ মামলায় সাজাপ্রাপ্ত ভারতের স্বঘোষিত ধর্মগুরু রাম রহিম? ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট এই ধর্মগুরুর শুরু হয় কারাবাস। দুই নারী ধর্ষণের অভিযোগে রাম রহিমকে ২০ বছরের সাজা দেয় ভারতীয় আদালত। এর পরই উত্তর ভারতের একাধিক রাজ্যে বিষয়টিকে কেন্দ্র করে দাঙ্গা ছড়িয়ে পড়ে।

সেই দাঙ্গায় মৃত্যু হয় ৪১ জনের। সে ঘটনার পর রাম রহিমের ঠিকানা হয় ভারতের রোহতক জেল। রোহতক জেলে কেমন আছেন এই ধর্মগুরু? জানার আগ্রহ অনেকেরই। তবে জেল সূত্রে জানা গেছে, জেলে সবজির চাষ করছেন রাম রহিম। প্রতিদিন ভোর ৫টায় ঘুম ভাঙে তার। এর পর বারান্দায় কিছুক্ষণ পায়চারি করেন তিনি।

কখনও যোগাসন করতে দেখা যায় তাকে। সকাল সাড়ে ৬টায় অন্যান্য কয়েদিদের সঙ্গে রাম রহিমকেও জেলের বাগানে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। সেখানে ২ ঘণ্টা ধরে ফসলের পরিচর্যা করেন। এর পর ৮টা নাগাদ তাকে সকালের খাবার দেওয়া হয়।

সকাল সাড়ে ৮টার মধ্যে খাওয়া দাওয়া শেষ করে রাম রহিমকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ে শুনানির জন্য তৈরি করা হয়। শুনানি না থাকলে নিজের কুঠুরিতে বসে বই পড়ে রাম রহিম। জেলে প্রায় আধ একর ব্যারাকে রাম রহিমের জন্য রয়েছে ১৫ ফুট লম্বা ও ১০ ফুট চওড়া একটি ঘর। এটাই এখন একসময়ের ৮০০ একর সাচ্চা ডেরার অধিপতির পৃথিবী।

দৈনিকটিতে প্রকাশ, ১ বছরে চেহারার জৌলুসলু অনেকটাই কমে গিয়েছে রাম রহিমের। কুচকুচে কালো চুল দাড়িতে ভেসে উঠেছে সাদা দাড়ির পাক। চেহারায় এসেছে বার্ধক্যের ছাপ। সঙ্গে কমেছে ওজনও। ১০৫ কেজি ওজনের রাম রহিমের ওজন কমে এখন ৯২ কেজিতে। অর্থাৎ ১২ মাসের বন্দীদশায় ১৩ কিলোগ্রাম ওজন কমেছে তার।

গুরমিত রাম রহিম সিং ১৯৯০ সালে ডেরা সাচ্চা সৌদা সংগঠনের প্রধান নির্বাচিত হন। স্বঘোষিত এ গুরুর প্রায় ৫ কোটি ভক্ত রয়েছে। পাঞ্জাব ও হরিয়ানার শহর ও গ্রামাঞ্চলে ডেরা সাচ্চার বহু কেন্দ্র রয়েছে। হরিয়ানার সিরসায় প্রায় ৮০০ একর জমির ওপর ডেরা রয়েছে রাম রহিমের। তিনটি সিনেমাও তিনি তৈরি করেছিলেন।

এদিকে, গুরমিত রাম রহিম সিংহ ইনসানের মতোই অবস্থা তার পালিত কন্যা হানিপ্রীত। রোহতকের জেলে রয়েছেন সাজাপ্রাপ্ত রাম রহিম। আর আমবালার সেন্ট্রাল জেলে দিন কাটছে হানিপ্রীতের।

জেলে ঢুকে অনেক বদলে গেছেন রাম রহিম। এখন তার রোজগার দৈনিক ২০ টাকা মাত্র। সারাদিন হাড়ভাঙা খাটুনি খাটতে হয় রান্নাঘরের পাশের বাগানে। তাকে দেখে চেনাই মুশকিল। তার পরিবার তাকে প্রতিমাসে ৫ হাজার টাকা দেয়। সেই টাকায় সিঙাড়া কিনে খান তিনি।

পালিত কন্যা হানিপ্রীত নাকি মুখিয়ে থাকেন কবে কোনো আত্মীয় তার সঙ্গে দেখা করতে আসেন। জেলে নিজেকে মানিয়ে নেয়ার তীব্র চেষ্টা করছেন তিনি। মামলা চলাকালীন আদালতে হাজিরা দিতে আসার সময়ে তার পরনে থাকে নিত্য নতুন ডিজাইনার স্যুট। প্রথম প্রথম বাড়ি থেকে খাবার আনাতেন। জেল কর্তৃপক্ষের নির্দেশে সেই সুবিধা বন্ধ হয়ে যায়। আপাতত জেলের খাবার খেয়ে দিন কাটছে তার।
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/54355
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ