Printed on Tue Jan 25 2022 4:21:27 PM

নিজের কাঁধে টলিউডের বাণিজ্যের মোড় ঘুরিয়েছিলেন প্রসেনজিৎ

বিনোদন ডেস্ক
বিনোদনভিডিও সংবাদ
নিজের
নিজের
প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় একজন জনপ্রিয় এবং সুপরিচিত চলচ্চিত্র অভিনেতা এবং প্রযোজক। যিনি বুম্বা দা নামে পরিচিত। গত ২৫ বছর ধরে বাংলা ছবিকে যদি কেউ একা হাতে বাঁচিয়ে রাখেন তাহলে তিনি মি: চ্যাটার্জী। বলাই বাহুল্য তার ছবির সংখ্যাও অগণিত। তিনি অসংখ্য সুপারহিট ছবি দিয়েছেন বাংলার দর্শকদের। তার প্রতিভা এবং অভিনয় অসংখ্য মানুষের মনে আজও জায়গা দখল করে রেখেছে। অনেকে তো আবার তাকে মহানায়ক উত্তম কুমারের পরের স্থানে দেখেন।

১৯৬২ সালে ৩০ শে সেপ্টেম্বর কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেন বাংলা জগতের এক নম্বর অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। তার পিতা ছিলেন বিখ্যাত অভিনেতা বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায় এবং মা রত্না চট্টোপাধ্যায়। প্রসেনজিৎ কলকাতা এয়ারপোর্ট ইংলিশ হাই স্কুলে এবং সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজিয়েট স্কুলেও পড়াশুনো করেন।

তার বর্ণময় কর্মজীবনের মতো তার ব্যক্তিগত জীবনও সিনেমার মতোই রোমাঞ্চকর। বুম্বা দার তিনটি বিয়ের কথা তো প্রায় সকলেই জানে। ১৯৯৯ সালে তিনি বিখ্যাত অভিনেত্রী দেবশ্রী রায়কে বিয়ে করেন তবে তাদের বিচ্ছেদ হয়ে যায়। প্রথম স্ত্রীর কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার পরে প্রসেনজিৎ ১৯৯৭ সালে অপর্ণার সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছিলেন। পাঁচ বছর পর একত্রে এই দম্পতি ২০০২ সালে আলাদা হয়ে যান। অবশেষে, অভিনেতা ২০০২ সালে অভিনেত্রী অর্পিতা পালকে বিয়ে করেন এবং এই দম্পতির ত্রিশনজিৎ নামে একটি পুত্র সন্তান রয়েছে।

প্রসেনজিৎ শিশুশিল্পী হিসেবে প্রথম অভিনয় করেন তার বাবা বিশ্বজিৎ পরিচালিত ছোট্ট জিজ্ঞাসাতে। ১৯৮৩ সালে দুটি পাতা ছবিতে প্রথম নায়ক হিসাবে তার আত্মপ্রকাশ ঘটে । ১৯৮৭ সালে অমর সঙ্গী ছবিতে তার দুর্দান্ত অভিনয়ের জন্য তিনি প্রথমবারের মতো টাইমলাইনে আসেন। ছবিটি টলিউড বক্স অফিসে যথেষ্ট আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল এবং অভিনেতা সমালোচক ও দর্শক প্রত্যেকের কাছে ইতিবাচক প্রশংসা অর্জন করেছিল।
১৯৮৯ সালে ডেবিঢ ধাওয়ানের পরিচালনায় আঁধিয়া এবং ১৯৯১ সালে মেহুল কুমারের পরিচালনায় মিত মেরে মন কে বলে দুটি হিন্দি ছবিতে নায়ক হিসাবে অভিনয় করেন। কিন্তু বলিউডের মাটিতে তিনি খুব বেশী প্রভাব বিস্তার করতে পারেন নি। প্রসেনজিৎ ঋতুপর্ণ ঘোষ পরিচালিত উনিশে এপ্রিল, উৎসব, চোখের বালি, দোসর, খেলা এবং দ্য লাস্ট লিয়র ছবিতে অভিনয় করেছেন। এর মধ্যে দ্য লাস্ট লিয়র ছবিটি ছিল তার অভিনীত একমাত্র ইংরেজি ছবি এবং এই ছবিতে তিনি অমিতাভ বচ্চনের সাথে অভিনয় করেন।

মি. চ্যাটার্জী অগণিত পুরস্কার লাভ করেছেন তার মধ্যে উল্লেখ্য যোগ্য বিএফজেএ অ্যাওয়ার্ড, বিগ বাংলা মুভি অ্যাওয়ার্ড, মহানায়ক সম্মাননা ও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার এবং পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র শ্রেষ্ঠ অভিনেতা ২০১৭ পুরস্কার লাভ করেছেন।

কিছুদিন আগেই মুক্তি পেয়েছে আয় খুকু আয় ছবির পোস্টার। পোস্টারে দেখা যাচ্ছে বিয়ের চন্দন সহ লাল টিপ। হঠাৎ করে দেখে না চেনা গেলেও তাঁর পরিচয় বলে দেয় চোখ আর ঠোঁটে লেগে থাকা হাসি। মাথায় টাক, মুখে কাঁচাপাকা দাড়ি, বিধ্বস্ত চেহারা একটা মলিন শার্ট পরে পুকুরঘাটে বসে আছেন তিনি। বাবা-মেয়ের মিষ্টি রসায়নের গল্প বলবে এই ছবি। সদ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের ও দিতিপ্রিয়ার লুকের ছবি ভাগ করে নিয়েছেন খোদ নায়ক। এই ছবিতে দ্বৈত চরিত্রে অভিনয় করবেন প্রসেনজিৎ, কেবল বয়স্ক নয়, ছবি জুড়ে তাঁর বিভিন্ন বয়সকে দেখানো হবে। নতুন এই ছবির প্রযোজনা করছেন অভিনেতা জিৎ। প্রথমবার প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে কাজ করবেন দিতিপ্রিয়া রায়। তাঁর লুকেও রয়েছে চমক। নিজের সঙ্গে সঙ্গে প্রসেনজিৎ ভাগ করে নিয়েছেন দিতিপ্রিয়ার লুকও। কলমকারি কুর্তি আর এলোমেলো চুলে দিতিপ্রিয়ার লুকের রয়েছে সাদামাটা মেয়ের ছোঁয়া।

ভয়েসটিভি/এএস
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/62674
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2022 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ