Printed on Fri Oct 15 2021 8:55:37 PM

প্রতিনিয়ত নিস্তেজ হয়ে আসছে পৃথিবী

নিজস্ব প্রতিবেদক
বিশ্বভিডিও সংবাদ
নিস্তেজ
নিস্তেজ
পৃথিবীর উপগ্রহ থেকে শুরু করে আস্তে আস্তে নিস্তেজ হয়ে আসছে সবকিছু। গুটি গুটি পায়ে হুমকির মুখোমুখি হতে যাচ্ছে পৃথিবী। নানা সমস্যার পর এখন পানি সংকটের আধার নেমে আসতেছে বিশ্ব দরবারে। বিশ্লেষকরা নতুন করে আবারেও পানি সংকটের আশঙ্কা করছে।


বিশ্ব আবহাওয়া বিষয়ক সংস্থা (ডব্লিউএমও) এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বিশ্বব্যাপী পানি সম্পর্কিত দুর্যোগ যেমন বন্যা এবং খরার ঝুঁকি বাড়তে শুরু করেছে। পানির সংকটে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সংখ্যাও বাড়বে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে।


২০৫০ সালের মধ্যে বিশ্বব্যাপী ৫শ কোটির বেশি মানুষ পানি সংকটের মধ্যে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। জাতিসংঘের একটি সংস্থা সম্প্রতি এ বিষয়ে সতর্ক করেছে।

দ্য স্টেট অব ক্লাইমেট সার্ভিসেস ২০২১ এর এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, ২০১৮ সাল থেকে পানির সংকট তীব্র হতে শুরু করেছে। ২০৫০ সালে এই সংকট আরও তীব্র থেকে তীব্রতর হয়ে উঠবে। ফলে পানি সংকটে পড়তে পারে ৫০০ কোটির বেশি মানুষ।

ক্রমাগত তাপমাত্রা বৃদ্ধির কারণে বৈশ্বিক এবং অভ্যন্তরীণ পরিবর্তন, বৃষ্টিপাতের ধারাবাহিকতায় পরিবর্তন এসেছে। এতে কৃষিকাজ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এর ফলে খাদ্য, মানুষের স্বাস্থ্য এবং অন্যান্য জিনিসে প্রভাব পড়ছে।

গত ২০ বছরে ভূপৃষ্ঠে সঞ্চিত পানির পরিমাণ আস্তে আস্তে কমে আসছে । পৃথিবীর মাত্র শূন্য দশমিক ৫ শতাংশ পানি ব্যবহারযোগ্য। কিন্তু দিন দিন সেই পরিমাণ আরো কমতে শুরু করেছে।

দক্ষিণ আফ্রিকার কেপটাউনে পানি সংকট এমন জায়গায় গিয়ে দাঁড়িয়েছে যে, খুব সহসাই ‘ডে জিরো' বা যে দিন থেকে শুধু জরুরি প্রয়োজনে পানি সরবরাহ সম্ভব, সে দিনটি এসে যেতে পারে৷ বাংলাদেশসহ ভারতীয় উপমহাদেশে দিন দিন ঝুঁকিপূর্ণ হারে কমে যাচ্ছে ভূগর্ভের পানির স্তর৷

মরক্কোতে সাহারা মরুভূমির কাছে অবস্থিত ১৩টি গ্রামে প্রায় ৪০০ মানুষের বাস৷ গ্রামগুলো এতই প্রত্যন্ত এলাকায় অবস্থিত যে, সেখানকার বাসিন্দাদের পানির জন্য অনেক দূরে যেতে হয়৷ প্রতিদিন এই কাজে গড়ে অন্তত তিন ঘণ্টা সময় ব্যয় হয়৷

অনেক নদী এখন আর সমুদ্রে পৌঁছায় না৷ সেগুলোর দিক পরিবর্তিত হয়েছে, বাঁধ দেয়া হয়েছে এবং অতিমাত্রায় ব্যবহৃত হয়েছে৷ বলা হচ্ছে, যুগে যুগে বিশ্বে পানি সংকট বাড়ছে খুবই ঝুঁকিপূর্ণ হারে৷ এর মধ্যে পানি সংকটে সবচেয়ে বেশি এখন আফ্রিকার দেশগুলো৷ সেখানে খরার পরিমাণও বৃদ্ধি পেয়েছে৷

২০০০ সাল থেকেই পরিস্থিতি একটু একটু বদলাতে শুরু করেছে। সে সময় থেকে বন্যার মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগগুলো ১৩৪ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। একই সময়ে খরা বেড়েছে ২৯ শতাংশ। খরার কারণে আফ্রিকায় বহু মানুষের মৃত্যুও হয়েছে।
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/55337
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ