Printed on Fri Jan 21 2022 6:07:20 AM

পুরোনো দিন ফেলে যেভাবে সভ্যজগতের তারকা হলেন সানি

বিনোদন ডেস্ক
বিনোদনভিডিও সংবাদ
পুরোনো
পুরোনো
নিষিদ্ধবাক্সে বন্দি জগতের তারকা সানি এখন বলিউডের শীর্ষ তারকা। যিনি অভিনেত্রী হিসেবেও এরইমধ্যে সিনেমাপ্রেমী দর্শকদের মনে জায়গা করে নিয়েছেন। বাংলাদেশের ছবিতেও পারফর্ম করেছেন এই সুন্দরী। নীলছবির আধো আলো আধো ছায়ার জগত থেকে তিনি কিভাবে উঠে এলেন আলোক ঝলমলে দুনিয়ায় তা জানার আগ্রহ সবার।

ভারতের দিলীপ মেহেতা এরই মধ্যে সানি লিওনকে নিয়ে তৈরি করেছেন তথ্যচিত্র 'মোস্টলি সানি'। এই তথ্যচিত্রে উঠে এসেছে সানির জীবনের অন্দরমহলের নানা খবর, যা এতদিন অজানা ছিলো । জনপ্রিয় টেলিভিশন রিয়্যালিটি শো 'বিগ বস'র মাধ্যমে পরিচিতি পান তিনি। খবরের কাগজের শিরোনাম হন। এরপর সেখান থেকে বের হয়েই পা রাখেন বলিউডে।

তার আসল নাম করনজিত কউর ভোহরা। তিনি ভারতীয় বংশোদ্ভূত কানাডীয়ান ও আমেরিকান নাগরিকত্ব পাওয়া। তিনি ছেলেবেলা থেকেই ছিলেন দুরন্ত। ছিলেন পড়ুয়া ছাত্রী, লাজুক এবং চুপচাপ। বন্ধুও তেমন ছিলনা তার। পড়াশোনার বাইরে ফটোশপে ভিডিও এডিটিং শিখেছিলেন।

ছোটবেলায় ছেলেদের সঙ্গেই খেলাধুলায় মেতে থাকতেন। মাত্র ১৬ বছর বয়সেই একটি বাস্কেটবল খেলোয়াড়ের মাধ্যমে হারিয়েছেন নিজের কুমারীত্ব। যার শরীরি আবেদনে মোহিত পুরো দুনিয়া, সেই সানির দিকেই নাকি কেউ তখন তাকাতই না। ১৮ বছর বয়সের পর থেকেই সানির দিকে পুরুষরা আকৃষ্ট হয় বলে জানান তিনি।

পর্ণতারকা হওয়ার আগে তিনি একটি জার্মান বেকারিতে কাজ করতেন। পরবর্তীতে ট্যাক্স ফার্মে যোগ দেন। অরেঞ্জ কাউন্টিতে পিডিঅ্যাট্রিক নার্স হিসেবে কাজ করেন। সে সময় জন স্টিভেনসের সঙ্গে পরিচয় ঘটে সানী লিওনের। জন তাকে পেন্টহাউস ম্যাগাজিনের আলোকচিত্রী জে অ্যালেনের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন।

তার মাধ্যমেই পর্ণ দুনিয়ায় প্রবেশ করেন সানী। সেখানেই জে অ্যালেন তার সানী নামটি ঠিক করেন। আর লিওন নামটি ঠিক করেন পেন্টহাউস ম্যাগাজিনের সাবেক মালিক বব গুচ্চিওনে। সে সময় তিনি ম্যাক্সিম ম্যাগাজিনের ২০১০ সালে বিশ্বের সেরা ১০ পর্ণস্টারের একজন হিসেবে নির্বাচিত হন।

সানি ২০১১ সালে ড্যানিয়েল ওয়েবারকে বিয়ে করেন। এই বছরেই ভারতের জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো ‘বিগ বস ৫’য়ে অংশ নেন। এরপর থেকেই পাল্টে গেলো গল্প। পর্ণ তারকা থেকে পা দিলেন বলিউডে। আর তাকে লাইমলাইটে নিয়ে আসলেন বলিউড সুপারস্টার সালমান খান। ২০১২ সালে তিনি বলিউডে প্রবেশ করে পূজা ভাটের থ্রিলার চলচ্চিত্র ‘জিসম ২’ সিনেমায় যৌন আবেদনময়ী চরিত্রে কাজ করেন। এরপর থেকেই বলিউডে জনপ্রিয়তা পেতে শুরু করেন সানি।

বলিউডে একের পর এক ছবিতে অভিনয় করেন, আইটেম গানে নাচেন। রাগিণী এম এম এস ২, এক পাহেলি লীলা, জ্যাকপট, হেট স্টোরি ২, ডিকে, মাস্তিজাদে ছবিতে অভিনয় করেন। সিনেমাগুলো ব্যপক হিট হয়। তিনি বাংলাদেশের শাপলা মিডিয়া প্রযোজিত ‘বিক্ষোভ’ সিনেমায় একটি আইটেম গানে পারফর্ম করেন। যদিও পরে ‘সানি সানি’ শীর্ষক এই গানটি সিনেমাটিতে রাখা হয়নি।

সানি সালমান খানের ভক্ত। তিনি এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, সালমানিই তাকে বলিউডের আলো ঝলমলে দুনিয়ায় সুযোগ করে দিয়েছিলেন। বিগ বস হাউজের মাধ্যমে তিনি সুযোগ করে নেন বলিউডে।

আমেরিকা-কানাডা থেকে বলিউড পযন্ত ছড়িয়েছে সানি লিওনের ভক্ত সংখ্যা। খোদ বলিউড স্টার ও সুপারস্টাররাও তার ভক্ত। বলিউড কিং শাহরুখের সঙ্গেও আছে তার আইটেম সং। বলিউড নায়িকা প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, আমির খানও তাকে পছন্দ করেন। বাংলাদেশেও তার ফলোয়ারের সংখ্যা বাড়ছে হু হু করে।

ভয়েসটিভি/এএস
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/62136
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2022 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ