Printed on Tue Nov 30 2021 9:59:55 AM

করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে পূর্ব-পশ্চিমের লড়াই

ভয়েস কলাম
বিশ্ব
পূর্ব-পশ্চিমের লড়াই
পূর্ব-পশ্চিমের লড়াই
করোনা ভাইরাস বা কোভিড-১৯। যার করাল থাবায় থমকে গেছে গোটা বিশ্ব। এ মহামারিতে এরই মধ্যে আক্রান্ত হয়েছে দু’কোটিরও বেশি মানুষ। আর মারা গেছে প্রায় পৌনে ৮ লাখ মানুষ। ধস নেমেছে বিশ্ব অর্থনীতিতেও। এখনো প্রতিদিন আক্রান্ত হচ্ছে হাজারো মানুষ। থামেনি মৃত্যু মিছিলও।

ছয় মাস ধরে করোনাকে মোকাবেলায় বিশ্বের নানা প্রান্তে দিনরাত গবেষণা করছেন চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা। অবশেষে আশা জাগানিয়া প্রথম ঘোষণা দিলেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। বললেন, করোনা ভ্যাকসিন আবিস্কার করেছে রাশিয়া। আর সপ্তা না ঘুরতে আরেকটি আশার বাণী শোনালো চীন। তারাও সফল হয়েছে করোনা ভ্যাকসিন আবিস্কারে।

কিন্তু রাশিয়া আর চীনের করোনা ভ্যাকসিন আবিস্কারে সন্তুষ্ট নয় পশ্চিমা বিশ্ব। তাদের দাবি, দেশ দুটি করোনা ভ্যাকসিন আবিস্কারে যথাযথ পথ অনুসরণ করেনি। ফলে তাদের আবিস্কৃত ভ্যাকসিন মানব শরীরে কতটুকু কাজ করবে তা নিয়ে সমালোচনায় মুখর পশ্চিমারা। দৃশ্যত, এ ভ্যাকসিন আবিস্কার নিয়ে বিশ্ব জুড়ে চলছে এক নতুন স্নায়ুযুদ্ধ। প্রকাশ্যে আসছে পূর্ব-পশ্চিমের লড়াই ।

এরআগে দ্বিতীয় বিশ্বযুদের পর স্নায়ুযুদ্ধ যুগে মহাকাশ লড়াইয়ে প্রথম স্পুটনিক-১ পাঠিয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে টেক্কা দিয়েছিলো রাশিয়া। সেই স্মৃতি স্মরণেই রাশিয়া এ বছরের ১১ আগষ্ট আবিস্কৃত করোনা ভাইরাসের টিকার নামও দেয়, স্পুটনিক-ভি । আর এ ভ্যাকসিনের ঘোষণা দেয়ার পরই সৌদি আরব ও মধ্যপ্রাচ্যসহ ২০টির বেশি দেশ ১০০ কোটি ডোজ দেয়ার অনুরোধ জানায় রাশিয়াকে।

রুশদের এই ভ্যাকসিন আবিস্কারে বেশ কিছু দেশ আশার আলো দেখলেও পশ্চিমা বিশ্ব নিয়ন্ত্রিত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, তাদের স্বীকৃতি পেতে হলে ভ্যাকসিনটির সুরক্ষার সব তথ্য বেশ ভালোভাবে পরীক্ষা করে দেখতে হবে। পাশাপাশি পরীক্ষামূলক প্রয়োগের বিস্তারিত তথ্য জানতে চায় সংস্থাটি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সাথে সুর মিলিয়ে পশ্চিমা দেশগুলোও একের পর এক সন্দেহের তীর ছুড়ছে রাশিয়ার ওপর।

এদিকে, ১৬ আগষ্ট চীনও ঘোষণা দেয়, তারাও করোনা ভ্যাকসিনের পেটেন্ট অনুমোদন দিয়েছে। দেশটির টিকা বিশেষজ্ঞ প্রতিষ্ঠান ক্যানসিনো বায়োলজিকসকে করোনার ভ্যাকসিন ‘অ্যাড ৫-এনকোভের’ জন্য অনুমোদন দেয়া হয়। প্রতিষ্ঠানটির দাবি, দ্বিতীয় পর্যায়ের পরীক্ষায় দেখা গেছে নিরাপত্তা আর প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরিতে সক্ষম তাদের আবিস্কৃত ভ্যাকসিনটি।

এবার চীনা ভ্যাকসিন আবিষ্কারের ঘোষণাতেও শোরগোল উঠেছে পশ্চিমা বিশ্বে। এবারো একই অভিযোগ তাদের, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নিয়মনীতি না মেনেই চীন বের করেছে করোনা ভ্যাকসিন। কিন্তু মহামারি করোনা ঠেকাতে যেখানে গোটা বিশ্বকে একসাথে কাজ করার কথা সেখানে কোটি কোটি মানুষের জীবনেকে রক্ষা পরিবর্তে কেন বির্তকে জড়িয়ে পড়ছে পূর্ব-পশ্চিম।

বিশ্লেষকরা বলছেন, গোটা বিশ্বে এখন সাতশো কোটিরও বেশি মানুষের বাস। সবাইকে করোনা থেকে সুরক্ষা দিতে অধিকাংশ দেশকেই কিনতে হবে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে কিনতে হবে করোনা ভ্যাকসিন। অর্থাৎ, যারাই আগে করোনা ভ্যাকসিন তৈরি করবে। তারাই করবে বাজিমাত।

শুধু তাই নয়, করোনা পরবর্তি বিশ্বে শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে এগিয়ে যাবে ভ্যাকসিন আবিস্কারের দেশটি। কারণ, ভ্যাকসিন পেতে অনেক দেশকেই নতজানু হতে হবে প্রতিপক্ষের কাছে। এমনিতেই দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর বিশ্ব নেতৃত্বের আসন পেতে শীতল যুদ্ধে মেতে ছিলো রাশিয়া- যুক্তরাষ্ট্রের। কিন্তু সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনে, দুই যুগেরও বেশি সময় ধরে বিশ্বে একক মোড়ল হিসেবে ছড়ি ঘোরাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।

কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের এই ছড়ি ঘোরানো কখনোই মেনে নিতে পারেনি রাশিয়া। তাই বছরের পর বছর ধরে আবারো পুরোনো আসনে ফিরে আসার চেষ্টা করছেন পুতিন। আর করোনা ভ্যাকসিন তাদের সামনে এনে দিয়েছে সেই সুযোগটি।

এদিকে, দিনদিন বিশ্ব অর্থনীতিতে যুক্তরাষ্ট্রকে চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলে দিয়েছে চীন। সেই চীনও যদি করোনা ভ্যাকসিন আবিস্কারে সফল হয়, তাহলে বিশ্ব নেতার আসন হারাতে পারে যুক্তরাষ্ট্র। তাইতো পূর্ব–পশ্চিমের লড়াইয়ে যেকোনো মূল্যে জয় চান ডোনাল্ড ট্রাম্প। এজন্য মিত্রদের নিয়ে তারাও মরিয়া হয়ে চেষ্টা চালাচ্ছে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের নিরাপদ ভ্যাকসিন আবিস্কারে।

লেখক : ফেরদৌস মামুন, সাংবাদিক

যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/10599
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ