Printed on Wed May 25 2022 8:15:01 PM

বলিউড ইতিহাসের সেরা ভিলেন তারা!

বিনোদন ডেস্ক
বিনোদনভিডিও সংবাদ
বলিউড
বলিউড
বলিউডের সুপারস্টার নায়ক-নায়িকাদের নিয়ে আগ্রহের কমতি থাকেনা কারও। কিন্তু যাদের উপস্থিতি ছাড়া ছবিই থাকে অসম্পূর্ণ সেসব দুর্দান্ত তারকা অভিনেতা যারা ভিলেনের পাঠ করেন, তারা বেশিরভাগই থাকেন আলোচনার পেছনে।

দুর্ধর্ষ সে সব বলিউড স্টার ভিলেনদের নিয়ে আজকের এ আয়োজন। জানাবো, বলিউড ইতিহাসের সেরা কিছু ভিলেনদের কাহিনী।

অমরেশ পুরির অভিনয় গুনে মুগ্ধ হয়ে অস্কারজয়ী হলিউড নির্মাতা স্টিভেন স্পিলবার্গ বলেছিলেন, ‘আমার সবচেয়ে প্রিয় খল চরিত্রের অভিনেতা অমরেশ পুরি।

পৃথিবীতে জন্ম নেওয়া সর্বকালের সব খলনায়কের মধ্যে তিনিই সেরা, তাঁর মতো কেউ আসবে না।

স্টিভেন স্পিলবার্গ তাঁর ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স অ্যান্ড দ্য টেম্পল অব ডুম’ সিনেমায় অমরেশ পুরিকে প্রধান ভিলেন চরিত্র ‘মোলা রাম’ হিসেবে কাস্ট করেছিলেন।

প্রথমে ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স’-এ অভিনয়ের জন্য রাজি হননি অমরেশ। পরে অ্যাটেনবরোর অনুরোধে রাজি হয়েছিলেন।

এই সিনেমায় অভিনয়ের জন্য মাথা কামিয়ে ফেলতে হয়েছিল অমরেশ পুরিকে।

পরে তার এই টেকো মাথার স্টাইল হিন্দি সিনেমায় এতটাই জনপ্রিয় হয় যে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত এই স্টাইল ধরে রাখেন তিনি।

অমরেশ পুরি বলিউডের চারশরও বেশি সিনেমায় অভিনয় করেছেন। ‘মি. ইন্ডিয়া’ ছবিতে তার ভিলেন চরিত্রটির নাম ছিল মোগাম্বো।

এতে তার ‘মোগাম্বো খুশ হুয়া’ সংলাপটি চার দশক পরেও মানুষের মুখে মুখে ফেরে। এছাড়া তার ‘করন অর্জুন’, ‘ঘায়েল’, ‘বাদশা’, ‘কয়লা’, ‘গাদ্দার’, ‘লোহা’ সিনেমাগুলোতে তার খল অভিনয় মানুষ মনে রেখেছে অনেকদিন।

সত্তর দশকে বলিউডের হিট সিনেমা ‘শোলে’। এ ছবির ভিলেন গাব্বার সিং চরিত্রে দুর্ধর্ষ অভিনয় করেছিলেন আমজাদ খান। এই ছবিতে আমজাদ খানের বেশ কয়েকটি সংলাপ কালজয়ী হয়েছে।

যা এখন মানুষের মুখে মুখে শোনা যায়। এর মধ্যে ‘ইয়ে হাত হামকো দেদে ঠাকুর’ সংলাপটি কালজয়ী হয়ে আছে। আরও একটি সংলাপ কালজয়ী হয়ে আছে। সেটি হচ্ছে ‘কিতনে আদমি থে’ ।

তার উল্লেখযোগ্য সিনেমা হচ্ছে ‘খুন পাসিনা’, ‘পারভারিস’, ‘মুকাদ্দার কা সিকান্দার’, ‘সুহাগ’, ‘কালিয়া’, ‘লাওয়ারিশ’, ‘বারসাত কি এক রাত’ সহ অনেক।

অমিতাভ বচ্চন অভিনীত ‘কুলি’ ছবির দুর্ধর্ষ ভিলেন ছিলেন কাদের খান। খলনায়ক চরিত্রে তিনি ছিলেন অনবদ্য। যদিও পরবর্তীতে তিনি কমেডিয়ান হিসেবে খ্যাতি পান।

কিন্তু ‘গঙ্গা যমুনা সরস্বতী’, ‘শারাবী’, ‘কুলি’, ‘দেশপ্রেমী’, ‘সুহাগ’, ‘মুকাদ্দার কি সিকান্দার’, ‘পারভারিস’, ‘অমর আকবর অ্যান্থনি’, ‘মি. নাটওয়ারলাল’, ‘অগ্নিপথ’, ‘হিম্মতওয়ালা’ সহ বহু ছবিতে তিনি ছিলেন দুর্ধর্ষ ভিলেন। তিনি চিত্রনাট্যকার হিসেবেও ছিলেন অনন্য।

বলিউডে তিন দশক ধরে তিনি শক্তিমান খলঅভিনেতা হিসেবে রাজত্ব করেছেন। ১৯৮০ সালে জনপ্রিয় অভিনেতা-নির্মাতা ফিরোজ খানের ছবি ‘কোরবানি’-তে তিনি খলচরিত্রে অভিনয় শুরু করেন।

এই ছবিতে দুর্ধর্ষ অভিনয় তাকে বলিউডে খলনায়কের পথ প্রশস্ত করে দেয়।

এর আগে অবশ্য অভিনেতা-নির্মাতা সুনীল দত্ত তার ‘রকি’ ছবিতে শক্তি কাপুরকে অভিনয়ের সুযোগ করে দেন ও তার প্রকৃত নাম ‘সুনীল সিকান্দারলাল কাপুর’ বদলে শক্তি কাপুর রাখেন।

চলচ্চিত্রটিতে তার অভিনীত চরিত্র আর ডি ব্যাপক প্রশংসা কুড়ায়। আশির দশকে জিতেন্দ্র, শ্রীদেবী, জয়া প্রদা অভিনীত ‘তোফা’ ছবিতে একই সঙ্গে খলনায়ক ও কৌতুক চরিত্রে অসাধারণ অভিনয় করে তুমুল জনপ্রিয় হন তিনি। এই ছবিতে তার একটি সংলাপ ‘আও ললিতা’ ব্যাপক জনপ্রিয় হয়।
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/66374
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2022 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ