Printed on Mon Oct 18 2021 5:07:36 PM

ভালো রান্না হলেই খেতে যাবেন জয়া!

বিনোদন ডেস্ক
বিনোদন
জয়া
জয়া
কলকাতার সঙ্গে বাংলাদেশের অভিনেত্রী জয়া আহসানের যেন প্রাণের টান। কাজে-অকাজে তাই বারবার ছুটে যান কলকাতায়। গত বছর একগাল হেসে তিনি বলেছিলেন, “কলকাতা ছাড়া পূজা ভাবতেই পারি না।” এ বছরও ব্যতিক্রম নয় মোটেই। কলকাতায় পূজা দেখার পরিকল্পনায় ব্যস্ত জয়া।

পূজা নিয়ে জয়া আহসান জানান, প্রাণখুলে আড্ডা, জমিয়ে খাওয়া দাওয়া আর দেদার ঘুরে বেড়ানো। পেটপুজো ছাড়া বাঙালির পূজা হয় নাকি! ব্যতিক্রম নন ‘বিসর্জন’-এর নায়িকা। খাওয়া দাওয়ায় কড়াকড়ি না-পসন্দ। আগাগোড়াই খাদ্যরসিক বাংলাদেশের এ নায়িকা। পূজার ক’দিন তাই যেমন-খুশি-খাও। আর শেষ পাতে মনের মতো মিষ্টি ছাড়া কবেই বা পূজার ভোজ জমেছে!

পূজায় জয়ার প্রিয় খাবার কী, এমন প্রশ্নে হেসে কুটিপাটি জয়া। বললেন, “আমার সব খাবারই ভালো লাগে। যে দিন যে বন্ধুর বাড়িতে ভালোমন্দ রান্না হবে, সে দিন সেখানে চলে যাব।”

আনন্দবাজারকে অভিনেত্রী বলেন, “পূজায় আমি শাড়ি পরতেই বেশি পছন্দ করি। কিন্তু কাজকর্মের সুবিধার্থে অনেক সময়ে কুর্তিও পরি। এ বার নীল রঙের উপর জারদৌসি কাজ করা কুর্তা পরব। সঙ্গে শারারা ধাঁচের প্যান্ট।”

শাড়ি নিয়ে বাছবিচার করেন না জয়া। ভালোবাসেন সব কিছুই। কিন্তু বাংলাদেশের জামদানি ছাড়াও মসলিন, চিরকালীন তাঁত রয়েছে তাঁর পছন্দের তালিকায়। পোশাক শিল্পীর ভাবনায় তৈরি হয় তন্তুজ শাড়ি। তাঁতিরা দীর্ঘ সময় ধরে শাড়ি বোনেন জয়ার জন্যই। সেই সব শাড়ি ঘিরেই জয়ার যত আবেগ, আর অফুরান ভালবাসা।

জয়ার আফসোস, “আমি যে শাড়িগুলো পরি, কয়েক দিনের মধ্যেই সেগুলো নকল করে আরও অনেক শাড়ি বাজারে চলে আসে। তার পর সেই শাড়িগুলোই আবার কম দামে বিক্রি হয়। এতে শিল্পের ক্ষতি হয়। লোকসান হয় তাঁতি ভাইদের।”

জয়ার শাড়ির মহিমা ছড়িয়েছে বিদেশেও। তার ভাই-বোনরাও এখন ঠিক ‘জয়া আহসানের মতো’ শাড়ি কিনছেন ডলার দিয়ে। গত অগস্টে মুক্তি পেয়েছে তার সাম্প্রতিক ছবি ‘বিনিসুতোয়’। তারপর থেকে আপাতত কলকাতাতেই বাস করেন জয়া।

ভয়েস টিভি/এসএফ
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/55460
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ