Printed on Sat May 28 2022 8:28:39 PM

অনলাইনে টিকিট নেই, রেল স্টেশনে ভোগান্তিতে যাত্রীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক
জাতীয়
ভোগান্তিতে যাত্রীরা
ভোগান্তিতে যাত্রীরা
অনলাইনে ট্রেনের টিকিট বিক্রি বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা। ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাড়িয়ে থেকে টিকিট নিতে হচ্ছে তাদের। দীর্ঘ ভিড় থাকার ফলে গন্তব্যের টিকিট পাচ্ছেন না অনেকেই। তাছাড়াও কাউন্টারসহ রেলওয়ের বুকিং মাস্টাররাও টিকিট দিতে হিমশিম খাচ্ছে।

যাত্রীরা অভিযোগ করে বলেন, আগাম প্রস্তুতি না নিয়ে হঠাৎ সারাদেশে অনলাইনে টিকিট বিক্রি বন্ধ রেখেছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। এ খবর না জানার কারণে সবাইকে কাউন্টারে আসতে হচ্ছে। তাতেও লাভ কি। দীর্ঘ অপেক্ষা করেও গন্তব্যের টিকিট পাচ্ছি না।

এর আগে ঘোষণা দিয়ে ২১ মার্চ থেকে ২৫ মার্চ পর্যন্ত টিকিট বিক্রি বন্ধ রেখেছিল রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

সংস্থার ভাষ্য মতে, ২০০৭ সাল থেকে ১৫ বছর চুক্তির ভিত্তিতে এতদিন অনলাইনে টিকিট বিক্রি করেছে কম্পিউটার নেটওয়ার্কিং সিস্টেম (সিএনএস)। নতুন টিকিট বিক্রির জন্য টেন্ডার পেয়েছে রাইড শেয়ারিং কোম্পানি সহজ লিমিটেড। সিএনএসের মেয়াদ শেষ হওয়ার পরই ২৬ মার্চ থেকে তারা অনলাইনে টিকিট বিক্রি শুরু করবে।

কমলাপুর রেল স্টেশনে বুধবার ২৩ মার্চ সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কাউন্টারের সামনে মানুষের ঢল। টিকিট ক্রয়ের জন্য সকলেই লাইনে দাড়িয়েছেন। যাত্রীদের  চাহিদানুযায়ী গন্তব্যের টিকিট পারছেন না কর্তৃপক্ষ। এ নিয়ে চলছে চেচামেচি। যারা পেয়েছেন তারা উচ্ছ্বাসের সহিত দ্রুত ট্রেনে উঠছেন।

রাজশাহী যাওয়ার জন্য টিকিট কিনতে লাইনে দাড়িয়েছেন সামছুদ্দিন। সকাল ১১ টায়ও কোনো টিকিট পাননি। তিনি বলেন, রাতে বাড়ি যাওয়ার জন্য অনলাইনে ট্রাই করে টিকিট পাইনি। পরে জানলাম অনলাইনে টিকিট বিক্রি বন্ধ। এত ভিড়ের মধ্যে কখন টিকিট পাবো জানি না।

রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন গত ১৪ মার্চ সংবাদ সম্মেলন করে জানান, ‘অনলাইনে টিকিট বিক্রির জন্য অভ্যন্তরীণ সেটআপের জন্য পাঁচ দিন সময় চেয়েছে সহজ। ২৬ মার্চ থেকে তারা অনলাইনে টিকিট বিক্রি শুরু করবে। তার আগে আমরা ম্যানুয়ালি টিকিট বিক্রি করবো আমরা। এখান থেকে সবাই টিকিট বিক্রি করতে পারবে সবাই। কোনো প্রকার কোটা বা আসন সংরক্ষণ রাখা হবে না।’

সূত্র জানায়, সহজের বাংলাদেশ রেলওয়ের ইন্টিগ্রেটেড টিকেটিং সিস্টেম (বিআরআইটিএস) ডিজাইন, ডেভেলপমেন্ট, সাপ্লাই, ইনস্টল, কমিশন, অপারেট, রক্ষণাবেক্ষণের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। চুক্তি অনুযায়ী টিকিট প্রতি জন্য সহজ লিমিটেডকে ২৫ পয়সা সার্ভিস চার্জ দেওয়া লাগবে। যেখানে সিএনএসকে দিতো প্রায় তিন টাকা। ১৮ মাস পর্যন্ত তারা আগের সার্ভারে (রেলওয়ের নিজস্ব সার্ভার) কাজ করবে। এরপর তারা প্রয়োজন মনে করলে টিকেটিং সিস্টেমে পরিবর্তন করবে এবং নিজস্ব সার্ভারে কাজ চালাবে বলেও চুক্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

ভয়েসটিভি/এমএম
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/70537
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2022 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ