Printed on Sat May 28 2022 6:45:02 AM

রক্ষণশীল পরিবারের নোরা ফাতেহি যেভাবে আইটেম ড্যান্সার

বিনোদন ডেস্ক
বিনোদনভিডিও সংবাদ
রক্ষণশীল
রক্ষণশীল
বলিউড কিংবা দক্ষিণ ভারতীয় সিনেমার আইটেম গানে মানেই নোরা ফাতেহি। তার জীবন, বলা চলে প্রায় রূপকথার মতো। নোরার ২৮ বছরের জীবনে যত সংগ্রাম, উঁচু–নিচু বাঁক, তা দিয়ে দিব্যি সিনেমা বানিয়ে ফেলা যায়। মরোক্কান বংশোদ্ভূত কানাডিয়ান এই তারকা ২০১৭ সালে প্রথম একক ‘নাহ’ গান দিয়েই কোটি দর্শকের মন জয় করে নেন। এরপর একের পর এক তার নাচমুখর গান দর্শক-শ্রোতাদের মাতিয়ে রেখেছে।

নোরা ফাতেহি আর তুফান যেন সমার্থক শব্দ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তার নাচ দেখার জন্য উদগ্রীব থাকেন অনুগামীরা। আর প্রকাশমাত্রই ভাইরাল হয়। ঘুম কেড়ে নেয় লাখো পুরুষের। বলিউডের সেরা তারকাদের অন্যতম কারিনা কাপুর নোরা প্রসঙ্গে বলেছেন, ‘নোরা গত কয়েক বছরে বলিউডের সেরা আবিষ্কার।

মরোক্কান বংশোদ্ভূত বলিউডের লাস্যময়ী তারকা নোরা ফাতেহির জন্ম ও বেড়ে ওঠা কানাডায়। তবে এই অভিনেত্রী, নৃত্যশিল্পী, মডেল ও প্রযোজকের ক্যারিয়ার বিকশিত হয়েছে ভারতেই। হিন্দি, তেলুগু, মালয়ালম ও তামিল ভাষার সিনেমায় কাজ করেছেন তিনি।

স্কুলজীবনে নোরা ফাতেহির নাচ দেখে খুব হাসাহাসি করেছিল সহপাঠীরা। বাড়ি ফিরে সেদিন খুব কান্নাকাটি করেছিলেন তিনি। ঘুম থেকে উঠে মাকে বললেন, ড্যান্সার হবেন, নাচ শিখতে চান তিনি। মরক্কোর রক্ষণশীল এক পরিবারের সন্তান নোরা পরিবার থেকে নাচ শেখার অনুমতি পাননি। নাচ শেখার অনুমতি না পেলেও শেষমেশ জেদের জয় হয়েছিল। ঘরের দরজা বন্ধ করে ইউটিউব দেখে নাচ শিখতে শুরু করেন নোরা। সেই সময়ই নোরার হৃদয়ে জায়গা করে নিল ‘বলিউডি নাচ’। ঠিক করলেন, বলিউডই হবে তার গন্তব্য।

কলেজে পড়ার সময় নোরার বাবা মারা গেলেন। বাবার মৃত্যুর পর ১৮ বছরের নোরা নিজের কাঁধে তুলে নিলেন পরিবারের দায়িত্ব। পড়াশোনা ভুলে কাজ শুরু করলেন। সকাল থেকে বেলা একটা পর্যন্ত রেস্তোরাঁয় খাবার পরিবেশন করতেন। সন্ধ্যায় কাজ করতেন কল সেন্টারে। এর মধ্যে ভারতের বিভিন্ন মডেলিং এজেন্সিতে নাচের ভিডিও পাঠিয়ে লিখতেন কাজের ইচ্ছার কথা। দেড় বছর পর একটা মেইলের জবাব আসে। সেই আনন্দে বাক্সপেটরা গুটিয়ে কানাডা থেকে ভারতের মুম্বাইয়ে চলে যান নোরা। সেটা ২০১২ সালের কথা।

ভারতে নোরার কেউ ছিল না। তিনি জানেন না হিন্দি ভাষা। তারপরও কেবল আত্মবিশ্বাসকে সঙ্গী করে ভারতে পা রেখেছিলেন ২৩ বছরের নোরা। পাঁচ বছরের মাথায় তিনি বলিউডের চোখে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন।

প্রথম দুই বছর নোরা কেবল বিজ্ঞাপন করেছেন, কিন্তু কোনো টাকা পাননি। সিনেমায় একটা চরিত্র পেতে সময় লেগে গেছে দুই বছর। সব নেতিবাচকতা, ব্যর্থতা, ঝুড়িভর্তি ‘না’ ঠেলে সরিয়ে সফলতার দেখা পেতে সময় লেগে যায় আরও চার বছর। আর এ মুহূর্তে নোরা বলিউডের সেরা ড্যান্সারদের একজন।
8 ইন্সটাগ্রামে নোরার প্রায় চার কোটি ফলোয়ার। এতো ফলোয়ারের মাইলফলক পেরোনো মরক্কোর প্রথম আর একমাত্র তারকা তিনি।

ভয়েসটিভি/এএস
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/68582
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2022 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ