Printed on Sun May 29 2022 12:25:59 PM

নাম চেয়ে রাজনৈতিক দলগুলোকে চিঠি পাঠাবে সার্চ কমিটি

নিজস্ব প্রতিবেদক
জাতীয়
সার্চ কমিটি
সার্চ কমিটি
নির্বাচন কমিশন গঠনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য কমিশনারের নাম প্রস্তাবে রাজনৈতিক দলগুলোর সুপারিশ বা প্রস্তাব চাওয়ার ক্ষেত্রে আগের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে অনুসন্ধান কমিটি।

গতকাল মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৪টায় সুপ্রিম কোর্টের জাজেস লাউঞ্জে দ্বিতীয় বৈঠকে বসে অনুসন্ধান কমিটি। বৈঠক শেষ হয় রাত ৮টায়। এর আগে গত রবিবার বিকেলে প্রথম বৈঠক করে অনুসন্ধান কমিটি।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদসচিব আনোয়ারুল ইসলাম কমিটির কর্মপরিকল্পনা সম্পর্কে এক ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের বলেন, ‘যেসব নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল আছে তাদের কাছ থেকেও আমরা প্রস্তাব চাইব, তাদের কোনো পছন্দ আছে কি না। রবিবার মন্ত্রিপরিষদের ওয়েবসাইট থেকে বা মেইলের মাধ্যমে এই নোটিশ দেওয়া হবে। এ ছাড়া কেউ যদি ব্যক্তিগতভাবে ইচ্ছা পোষণ করেন, তাহলে তিনিও প্রস্তাব করতে পারবেন। ’

তিনি বলেন, ‘আগামীকাল দুপুরের মধ্যে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর কাছে চিঠি পাঠানো হবে। প্রত্যেক দলকে অনুরোধ করা হবে শুক্রবার বিকেল ৫টার মধ্যে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে অনলাইনে অথবা শারীরিকভাবে উপস্থিত হয়ে অনধিক ১০ জনের নাম প্রস্তাব করার জন্য। শুক্রবার বিকেল ৫টা পর্যন্ত মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের কার্যালয় খোলা থাকবে। সেখানে প্রস্তাব গ্রহণ করার ব্যবস্থা রাখা হবে। সেই সঙ্গে বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠন এবং অন্যদের কাছেও নামের প্রস্তাব চাওয়া হবে। তাদের কোনো সুপারিশ-পরামর্শ থাকলে তারাও দিতে পারবে। ’

সুধীসমাজ, সাংবাদিক ও পেশাজীবী সংগঠনের ব্যক্তিদের সঙ্গে আগামী শনি ও রবিবার দুই দিনে অনুসন্ধান কমিটি আরো তিনটি বৈঠক করবে বলে জানান মন্ত্রিপরিষদসচিব।

বুধবার দুপুরের মধ্যে তাঁদের কাছেও চিঠি পাঠানো হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আগামী শনিবার সকাল ১১টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত এবং পৌনে ১টা থেকে সোয়া ২টা পর্যন্ত দুটি মিটিং হবে বিশিষ্ট নাগরিক, সাংবাদিক ও পেশাজীবী সংগঠনের গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সঙ্গে। এর পরদিন রবিবার বিকেল ৪টায় আবার মিটিং হবে। মোট তিনটি মিটিং হবে তাঁদের নিয়ে। তাঁদেরও বুধবার দুপুরের মধ্যে চিঠি দিয়ে দেব। উনাদের যদি কোনো সুপারিশ-প্রস্তাব থাকে তবে অনলাইনে কিংবা মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠাতে পারবেন। ’

সুধীসমাজ, সাংবাদিক ও পেশাজীবী সংগঠনের ব্যক্তিদের তালিকা করা হয়েছে কি না জানতে চাইলে সচিব বলেন, ‘৬০ জন ব্যক্তির প্রাথমিক তালিকা করা হয়েছে। এর পরও যদি কেউ বাদ পড়েন, তবে সে বিষয়টিও বিবেচনায় রাখা হবে। কমিটি যদি মনে করে উনাদেরও (বাদ পড়াদের) ডাকা দরকার, তারা ডাকবে। তবে নামগুলো বাছাই করা হয়ে গেছে। ’

আরেক প্রশ্নে সচিব বলেন, ইসি গঠনের জন্য অন্তত ৩০ জনের নাম পেয়েছে অনুসন্ধান কমিটি। আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি বর্তমান ইসির মেয়াদ শেষ হচ্ছে। অনুসন্ধান কমিটির মেয়াদ ১৫ কার্যদিবস। বর্তমান ইসির মেয়াদ শেষের আগেই অনুসন্ধান কমিটি নাম প্রস্তাবের প্রক্রিয়া শেষ করতে পারবে কি না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমরা বিষয়টি নিয়ে কাজ করছি। আগামীকাল নির্বাচন শেষ হয়ে যাবে। এরপর আর নির্বাচন থাকবে না। এর পরও এই আইনি দিকটা আমরা কাল আবার নিরীক্ষা করে দেখব, কমিশনে থাকা বা না থাকার মেয়াদের বিষয়ে কোনো বাধ্যবাধকতা আছে কি না। ’

অনুসন্ধান কমিটির নিরপেক্ষতা নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে সবিচ বলেন, ‘এ নিয়ে কোনো প্রশ্ন থাকবে না। অ্যাবসলিউটলি নিরপেক্ষ থাকবে। ’

সংবিধানের ১১৮(১) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী ‘প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ আইন’ ২৭ জানুয়ারি সংসদে পাস হয়। এ আইনের আলোকে ছয় সদস্যের অনুসন্ধান কমিটি গঠন করা হয় গত শনিবার। আইন অনুযায়ী, ইসি গঠনে নামের সুপারিশ চূড়ান্তের জন্য অনুসন্ধান কমিটির জন্য সময় ১৫ কার্যদিবস।

ভয়েসটিভি/এমএম
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/66246
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2022 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ