Printed on Tue Nov 30 2021 9:42:33 AM

১৯০ কিমি সড়ক হচ্ছে হাওরে, ব্যায় ৩৫০০ কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক
সারাদেশ
৩৫০০ কোটি টাকা
৩৫০০ কোটি টাকা
ঢাকা: হাওর এলাকায় গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় সুনামগঞ্জ জেলার নামে প্রায় ৩৫০০ কোটি টাকা ব্যায়ে ১৯০ কিলোমিটার সড়কের একটি প্রকল্প পরিকল্পনা কমিশনে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে এলজিইডি মন্ত্রণালয়। এ প্রকল্পের মাধ্যমে জেলার ধর্মপাশা, তাহিরপুর, জামালগঞ্জ ও দিরাই উপজেলা উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থার অধীনে আসবে।

প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে স্থানীয় সরকার বিভাগ ও স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর। এতে সুনামগঞ্জে বর্ষার সময়ও জেলার প্রতিটি উপজেলার সঙ্গে যেমন সংযোগ স্থাপন সম্ভব হবে, তেমনি নেত্রকোনার সঙ্গেও সুনামগঞ্জের সরাসরি সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে উঠবে।

জানা গেছে, প্রকল্প বাস্তবায়নে পরিকল্পনা কমিশন কিছু নির্দেশনা দিয়েছে। এর পরেই প্রকল্পটি চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় উপস্থাপন করা হবে। চলতি সময় থেকে প্রকল্পের বাস্তবায়ন মেয়াদ ধরা হয়েছে ২০২৫ সালের জুন পযর্ন্ত।

এলজিইডির সূত্র আরও জানায়, ১৯০ কিলোমিটার সড়কের মধ্যে উপজেলা অল সিজন সড়ক ১০৬ দশমিক ৫৮ কিলোমিটার, উপজেলা সাবমারজিবল সড়ক ২৮ দশমিক ২১ কিলোমিটার, ইউনিয়ন অল সিজন সড়ক ১৯ দশমিক ২০ কিলোমিটার, ইউনিয়ন সাবমারজিবল সড়ক ১৪ দশমিক ৬৯ কিলোমিটার, গ্রাম সাবমারজিবল সড়ক ৮ দশমিক ১৭ কিলোমিটার এবং উপজেলা এলিভেটেড (উড়াল) সড়ক ১৩ দশমিক ৪১ কিলোমিটার। পাশাপাশি উপজেলা সড়কে ২ হাজার ৯৮৭ মিটার ব্রিজ, ইউনিয়ন সড়কে ৬৮৫ মিটার ব্রিজ, উপজেলা সড়কে ৬৬৭ মিটার কালভার্ট, ইউনিয়ন সড়কে ৭৫ মিটার কালভার্ট এবং গ্রাম সড়কে ৩৩ মিটার কালভার্ট নির্মাণের প্রস্তাব করা হয়েছে।

তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বাঁধ দিয়ে সড়ক নির্মাণ করলে হাওরের ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। অল সিজন ও সাবমারজিবল সড়ক নির্মাণ করলে হাওরের পানি প্রবাহ বাধাগ্রস্ত হবে। হাওরের ইকো-সিস্টেম বাধাগ্রস্ত হবে। এরকম জলাশয় পৃথিবীতে বিরল। তাই পানি প্রবাহ যাতে বাধাগ্রস্ত না হয়, সেজন্য উড়াল সড়ক করতে হবে হাওরে। ব্যয়বহুল হলেও উড়াল সড়কই হাওরের জন্য উপযুক্ত।

প্রকল্প প্রসঙ্গে এলজিইডির প্রধান প্রকৌশলী মো. আব্দুর রশীদ খান বলেন, হাওরের কারণে সুনামগঞ্জ জেলার অধিকাংশ উপজেলা বিচ্ছিন্ন। এসব উপজেলায় যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নয়নের জন্য এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়েসহ অন্যান্য অবকাঠামো নির্মাণে প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। প্রকল্পটি একেবারেই প্রাথমিক অবস্থায় রয়েছে। প্রায় ৩৫০০ কোটি টাকার প্রকল্প প্রস্তাব দেয়া হলেও সেটি ১৫০০ কোটি টাকায় নেমে আসতে পারে। তবে এখনও কিছু চূড়ান্ত নয়। আরও কিছু যাচাই-বাছাই করে প্রকল্পটি একনেক সভায় তোলা হবে।

ভয়েস টিভি/নিজস্ব প্রতিবেদক/টিআর
যোগাযোগঃ
ভয়েস টিভি ৮০/৩, ভিআইপি রোড, খান টাওয়ার, কাকরাইল,
ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৩৩৮৫৩০
https://bn.voicetv.tv/news/10682
© স্বত্ব ভয়েস টিভি 2021 — ভয়েস টিভি
শাপলা মিডিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান
সর্বশেষ সংবাদ